default-image

রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলায় গৃহবধূকে ধর্ষণের দৃশ্য ভিডিও ধারণ করে তা ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে টাকা আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত শনিবার রাতে পাংশা থানায় ধর্ষণ ও পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়েছে। পুলিশ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে। ওই যুবকের নাম আরজু সরদার (২৩)। তাঁর বাড়ি পাংশা উপজেলায়।

এজাহার সূত্রে জানা যায়, গৃহবধূর স্বামী তিন বছর ধরে কাতার প্রবাসী। আরজু তাঁর স্বামীর পরিচিত। সেই সূত্রে বাড়িতে যাতায়াত। ঘনিষ্ঠতার সূত্র ধরে আরজু গৃহবধূকে আত্মীয়ের বাড়িতে বেড়াতে নিয়ে যান। সেখানে তাঁকে ধর্ষণের ভিডিও মুঠোফোনে ধারণ করা হয়। পরে সেই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছাড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে টাকা দাবি করেন। তাঁকে ২০ হাজার টাকা দেওয়া হয়েছে। একই হুমকি দিয়ে তিনি ওই গৃহবধূকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন। সবশেষ ২৫ ফেব্রুয়ারি তাঁকে আবারও ধর্ষণ করা হয়। ধর্ষণের দৃশ্য মুঠোফোনে ধারণ করে রাখেন আরজু। সেটা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে আবার টাকা দাবি করেন।

পাংশা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন বলেন, শনিবার রাতে মামলা হয়েছে। এরপর অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারের পর মুঠোফোনে ধর্ষণের ভিডিও পাওয়া গেছে। তাঁকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন