default-image

জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলায় ধর্ষণের শিকার হয়ে বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী এক নারী (৩০) অন্তঃসত্ত্বা হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। পুলিশ অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে। পরে ওই নারীর মা বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা করেন।

গ্রেপ্তার ব্যক্তির নাম হাবিল উদ্দিন (৪২)। তিনি পেশায় একজন মুদিদোকানি। গতকাল মঙ্গলবার রাতে পুলিশ তাঁকে গ্রেপ্তার করে। আজ বুধবার দুপুরে তাঁকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, হাবিল উদ্দিন একজন মুদিদোকানি। মাঝেমধ্যে তাঁর দোকানে ওই বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী নারী যেতেন। সেই সুযোগে পাঁচ-ছয় মাস ধরে ওই নারীকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন তিনি। এতে ওই নারী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন। পরে বিষয়টি ওই নারীর পরিবার বুঝতে পারে। অভিযোগ পেয়ে পুলিশ তাঁকে গ্রেপ্তার করে। পরে তাঁকে ওই নারীর মুখোমুখি করলে পুলিশ ওই মুদিদোকানিকে শনাক্ত করেন।

মেলান্দহ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম এম ময়নুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, ওই নারী একজন বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী। তবে তিনি সব কথা বলতে ও বুঝতে পারেন। ওই ব্যক্তি এই নারীকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন। ওই নারী হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে পরিবারের লোকজন তাঁকে চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যান। চিকিৎসক তাঁদের অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার বিষয়টি জানান। পরে ওই নারী পরিবারের কাছে হাবিল উদ্দিনের নাম বলেন।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন