বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এর আগে ট্রলারডুবির পঞ্চম দিনে গতকাল রোববার বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে ধলেশ্বরী নদীর ধর্মগঞ্জ গুদারাঘাট এলাকা থেকে দুজনের এবং সকালে নারী-শিশুসহ চারজনের লাশ ভাসমান অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। এ নিয়ে নিখোঁজ ১০ জনের মধ্যে ৮ জনের লাশ পাওয়া গেল।

নারায়ণগঞ্জের সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রিফাত ফেরদৌস বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

এখন পর্যন্ত যে আটজনের লাশ পাওয়া গেছে তাঁরা হলেন গৃহবধু জেসমিন বেগম, তাঁর বড় মেয়ে তাসনিম, জেসমিনের ছেলে মাদ্রাসাশিক্ষার্থী তামিম খান, স্থানীয় একটি মসজিদের মুয়াজ্জিন মো. আবদুল্লাহ, মোতালেব মিয়া, আওলাদ হোসেন, কলেজছাত্র সাব্বির আহমেদ ও পোশাক কারখানার শ্রমিক জোসনা বেগম। তাঁদের প্রত্যেকের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। ১৪ মাসের শিশু তাসফিয়া আক্তার ও ৬৫ বছর বয়সী বৃদ্ধ শামসুদ্দিন আহমেদকে এখনো খুঁজে পাওয়া যায়নি।

ফায়ার সার্ভিসের উপপরিচালক আবদুল্লাহ আল আরেফিন বলেন, যেখানে ট্রলার ডুবেছে, সেখান থেকে কিছুটা দূরে আজকে সকালে দুটি লাশ পাওয়া যায়। নিখোঁজ বাকি দুজনের সন্ধানে অভিযান চলছে।

গত বুধবার এমভি ফারহান-৬ নামের যাত্রীবাহী লঞ্চের ধাক্কায় প্রায় ৭০ যাত্রী নিয়ে ডুবে যায় একটি ট্রলার।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন