আজ জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের স্থানীয় উপসহকারী প্রকৌশলী মো. জিল্লুর রহমান জানান, বৃহস্পতিবারই ঠিকাদারের লোকজন মালামাল নিয়ে এসেছেন। সকাল থেকেই তাঁরা কাজটির সংস্কারকাজ করছেন। আশা করছেন দ্রুতই শেষ হবে। তিনি আরও জানান, কাজটি যেন ত্রুটিপূর্ণ না হয়, সে বিষয়ে সার্বিক খেয়াল রাখা হচ্ছে।

কোটচাঁদপুর পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ড নওদাগা ও কাশিপুরের অংশবিশেষের মানুষের পানির প্রয়োজনে গভীর নলকূপটি স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হয়। পাম্পটির কাজ শুরু হয় ২০১৭ সালের শেষ দিকে। দুজন ঠিকাদার কাজটি করেছেন। পানির লাইনের কাজের জন্য প্রায় ৬০ লাখ আর ভবনের জন্য প্রায় ২৫ লাখ টাকা বরাদ্দ করা হয়। নানা জটিলতায় কাজটি বিলম্ব হয়েছে। এরপরও শেষ করে সদ্য চালু করা হয়েছে। নিচে বালু দেওয়া হয়েছে, যা পানির স্রোতের কারণে সরে গেছে। এতে ভবনের নিচের মাটি কিছুটা সরে গেছে।