default-image

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলায় ১৩৫ বোতল ফেনসিডিলসহ এক দম্পতিকে আটক করেছে ঘোড়াঘাট থানার পুলিশ। আজ শনিবার ভোররাতে দিনাজপুর-গোবিন্দগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়কের রানীগঞ্জ বাজার এলাকায় টহলরত পুলিশের প্রতিনিধিদল তাঁদের আটক করে।

আটক দম্পতি হলেন দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলার দক্ষিণ বাসুদেবপুর (ভীমপুর পাড়া) গ্রামের মৃত লিয়াকত আলীর ছেলে মুন্না আলী ওরফে শামিম (৪৩) এবং তাঁর স্ত্রী শাপলা বেগম ওরফে সৃষ্টি চৌধুরী (৩৪)। শাপলা বেগম নিজেকে দৈনিক সরেজমিন বার্তা, হাওর বার্তা এবং সত্যের বাণী পত্রিকার সাংবাদিক বলে পরিচয় দেন।

পুলিশ জানায়, শনিবার ভোরে রানীগঞ্জ বাজার এলাকায় রাত্রিকালীন দায়িত্ব পালন করছিল পুলিশের একটি দল। ভোর ৫টায় দ্রুতগতিতে ছুটে চলা সন্দেহভাজন একটি মোটরসাইকেলকে তাঁরা থামার সংকেত দেন। চালক সংকেত অমান্য করে দ্রুতগতিতে ছুটে যান। প্রায় আধা কিলোমিটার সামনে রানীগঞ্জ বাজারের পাশে পুলিশের উপপরিদর্শক হাবিবের নেতৃত্বে ডিউটিতে থাকা আরেকটি দল খবর পেয়ে মোটরসাইকেলটিকে থামানোর চেষ্টা করে।

বিজ্ঞাপন

চালক আবারও কৌশলে মোটরসাইকেল ঘুরিয়ে পালানোর চেষ্টা করেন। এ সময় পুলিশ ধাওয়া করে মোটরসাইকেলটি আটক করলে তাঁরা সাংবাদিক পরিচয় দেন। পুলিশের সন্দেহ হলে তাঁদের কাছে থাকা একটি ব্যাগে তল্লাশি চালিয়ে ১৩৫ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করে এবং তাঁদের আটক করে।

ঘোড়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিম উদ্দিন বলেন, তাঁরা সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে দীর্ঘদিন থেকে মাদকের ব্যবসা করে আসছেন। জিজ্ঞাসাবাদে তাঁরা তাঁদের অপরাধ স্বীকার করেছেন। তাঁরা কোনো সংবাদ পরিবেশন করেন না।

ওসি আজিম উদ্দিন আরও বলেন, আটক শাপলা বেগমের নামে জয়পুরহাট জেলায় মাদকের দুটিসহ মোট তিনটি মামলা রয়েছে এবং তাঁর স্বামীর বিরুদ্ধেও বিভিন্ন থানায় দুটি মাদক মামলা রয়েছে। তাঁদের বিরুদ্ধে ঘোড়াঘাট থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়েছে। ওই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আজ শনিবার বিকেলে তাঁদের আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন