default-image

বগুড়ার ধুনট উপজেলার ভান্ডার বাড়ি ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি রিপন মিয়াকে ২৫টি ইয়াবা বড়িসহ গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে বাকশাপাড়া গ্রাম থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। আজ বুধবার বেলা ১১টার দিকে তাঁকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়। রিপন মিয়া ভান্ডার বাড়ি ইউনিয়নের মাধবডাঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রিপন মিয়া এলাকায় সরকার দলের প্রভাব খাটিয়ে দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসা করে আসছিলেন। এর আগে তাঁকে ২০০৮ ও ২০২০ সালে দুইবার মাদকসহ গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠায় পুলিশ। পরে কারাগার থেকে জামিনে মুক্তি পেয়ে আবার মাদক ব্যবসায় জড়িয়ে পড়েন তিনি। রিপন মিয়া মঙ্গলবার রাতে গোসাইবাড়ি ইউনিয়নের বাকশাপাড়া গ্রামের একটি পাকা রাস্তায় দাঁড়িয়ে ইয়াবা বড়ি বিক্রি করছিলেন। এ খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে অভিযান চালিয়ে ২৫টি ইয়াবা বড়িসহ তাঁকে গ্রেপ্তার করে।

উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আতিকুর রহমান বলেন, মাদক বিক্রির অভিযোগে যুবলীগের নেতা রিপন মিয়ার বিরুদ্ধে সাংগঠনিকভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
এদিকে অন্য এক অভিযানে চিকাশি ইউনিয়নের হটিয়ার পাড়া গ্রামের বাড়ি থেকে ২০০ গ্রাম গাঁজাসহ শফিকুল ইসলামকে (৫০) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

ধুনট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রিপন মিয়া ও শফিকুল ইসলাম মাদক বিক্রির সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। দুজনের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে পৃথক দুটি মামলা করে গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন