default-image

একটি জলাশয়ের ইজারা নিয়ে বিরোধের জেরে বগুড়ার ধুনটে মন্দিরে অগ্নিসংযোগ ও প্রতিমা ভাঙচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। মন্দির পরিচালনা কমিটির সদস্যদের অভিযোগ, গতকাল সোমবার দিবাগত রাতে দুর্বৃত্তরা উপজেলার চৌকিবাড়ি ইউনিয়নের টেংরাখালী গ্রামের রাধাগোবিন্দের মন্দিরে অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুর করে।

খবর পেয়ে আজ মঙ্গলবার সকালে মন্দির এলাকা পরিদর্শনে যান পুলিশ ও উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা। ধুনট থানার পুলিশ জানায়, টেংরাখালী গ্রামে সরকারি একটি জলাশয়ের তীরে রাধাগোবিন্দের মন্দিরে সরস্বতীর প্রতিমা ছিল। সোমবার রাতে দুর্বৃত্তরা পূর্বশত্রুতার জেরে সেখানে অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুর করেন।

খবর পেয়ে আজ সকালে বগুড়ার পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঞা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গাজিউর রহমান, ধুনট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সঞ্জয় কুমার মহন্ত ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পরে প্রশাসনের উপস্থিতিতে রাধাগোবিন্দের মন্দির থেকে সরস্বতী প্রতিমাটি টেংরাখালী জলাশয়ে বিসর্জন দেওয়া হয়।

বিজ্ঞাপন

টেংরাখালী রাধাগোবিন্দ মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি খোকা চন্দ্র হাওয়ালদার বলেন, টেংরাখালী সরকারি জলাশয়ের ইজারা নিয়ে একটি পক্ষের সঙ্গে মন্দির কমিটির দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে। তিনি ধারণা করছেন, এই বিরোধের জেরেই মন্দিরে অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুর করা হয়েছে।

ধুনট থানার ওসি কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, খবর পেয়ে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়। জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশে ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের চিহ্নিত করে গ্রেপ্তারর চেষ্টা চলছে।

বগুড়ার পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূঞা বলেন, মন্দিরে অগ্নিসংযোগ ও প্রতিমা ভাঙচুরের ঘটনা তদন্ত করে জড়িতদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের জন্য থানা-পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন