এ অবস্থায় বুধবার সকাল আটটার দিকে আফছার আলী তাঁর লোকজন নিয়ে বিরোধপূর্ণ জমির ধান কাটতে শুরু করেন। খবর পেয়ে হবিবর রহমান তাঁর লোকজন নিয়ে এতে বাধা দেন। একপর্যায়ে দুই পক্ষের মধ্যে এক ঘণ্টা ধরে পাল্টাপাল্টি ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে ৩০ জন আহত হয়েছেন।

আহত ব্যক্তিদের মধ্যে আফসার আলীর ভাতিজা জামাল উদ্দীন (৩৮) ও তাঁর স্ত্রী ডেফুলী খাতুন (৩৫) এবং হবিবর রহমানের ছেলে শাহীন আলমের (৩০) অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাঁদের বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অন্যদের ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

হবিবর রহমান বলেন, পৈতৃক সূত্রে পাওয়া ওই জমি দীর্ঘদিন ধরে তাঁদের দখলে ছিল। আফছার আলী ওই জমি জোর করে দখল নেয়।

আফছার বলেন, হবিবর রহমান তাঁর পৈতৃক জমি দীর্ঘদিন ধরে জোর করে দখলে রেখেছিল। সম্প্রতি তিনি সে জমি উদ্ধার করে সেখানে ধান রোপণ করেন।

ধুনট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কৃপাসিন্ধু বালা বলেন, পরিস্থিতি শান্ত করতে তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। দুই পক্ষের লিখিত অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন