বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বিএনপির সমর্থিত প্রার্থীর পক্ষ নিয়ে নৌকার প্রার্থীর ওপর হামলা করার অভিযোগে গোলাম মোর্তজাকে দল থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।
সেলিম রেজা, ধুনট উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক

এদিকে হামলার ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে গোলাম মোর্তজাকে দল থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে। বিষয়টি ধুনট উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি এ বি এস সবুজ ও সাধারণ সম্পাদক সেলিম রেজা আজ দুপুরে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানিয়েছেন।

উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক সেলিম রেজা প্রথম আলোকে বলেন, বিএনপির সমর্থিত প্রার্থীর পক্ষ নিয়ে নৌকার প্রার্থীর ওপর হামলা করার অভিযোগে গোলাম মোর্তজাকে দল থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।

নৌকার প্রার্থীর লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, তৃতীয় ধাপে ২৮ নভেম্বর ধুনট উপজেলার ১০টি ইউপির সঙ্গে মথুরাপুর ইউপি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ওই ইউপির নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হাসান আহম্মেদ গতকাল রাত ১১টার দিকে প্রচারণা শেষ করে মোটরসাইকেলে ফিরছিলেন। পথে উলিপুর তিনমাথায় কাশিয়াহাটা সড়কে মথুরাপুর ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি গোলাম মোর্তজা ও আনারস প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী শফিকুল ইসলামসহ চারজন মোটরসাইকেল নিয়ে এসে হাসান আহম্মেদের ওপর হামলা চালান। এ সময় হামলাকারীদের মোটরসাইকেলের ধাক্কায় হাসান আহম্মেদ মাটিতে পড়ে যান। এতে তিনি আহত হন। হামলাকারীরা তাঁকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে চলে যান।

অভিযোগের বিষয়ে গোলাম মোর্তজা বলেন, ‘আমি না, আমার ভাই গোলাম মোস্তফা স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী (আনারস প্রতীক) শফিকুল ইসলামের কর্মী। নৌকার প্রার্থী হাসান আহম্মেদের লোকজন আমার ভাইকে এ জন্য মারধর করেছেন। এখন হাসান আহম্মেদ নিজে আহত হওয়ার ঘটনা সাজিয়ে আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দিয়েছেন।’ তিনি বলেন, ‘বহিষ্কারের বিষয়ে আমাকে কোনো চিঠি দেওয়া হয়নি।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন