ধুনট পৌরসভা মেয়রের করোনা শনাক্ত

বিজ্ঞাপন
default-image

বগুড়ার ধুনট পৌরসভার মেয়র এ জি এম বাদশা ও ভান্ডারবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আতিকুল করিম করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এই তথ্য নিশ্চিত করেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মেয়র এ জি এম বাদশা করোনাভাইরাস উপেক্ষা করে শুরু থেকেই সরকারি ও বেসরকারিভাবে বরাদ্দের বিভিন্ন ত্রাণসামগ্রী বিতরণ কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত ছিলেন। এ ছাড়া তিনি ধুনট বাজারের ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের সদস্যদের নিয়ে করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সচেতনামূলক নানা ধরনের সভা–সমাবেশ ও প্রচার চালান। একপর্যায়ে এলাকার করোনাভাইরাসে সংক্রমিত রোগীদের খবর পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে তাঁদের চিকিৎসার ব্যবস্থাসহ খাবারসামগ্রী নিয়ে বাড়িতে বাড়িতে উপস্থিত হয়েছেন। এ অবস্থায় গত কয়েক দিন ধরে তিনি শারীরিকভাবে অসুস্থ বোধ করেন। পরে তিনি গত মঙ্গলবার বগুড়া বেসরকারি টিএমএসএস মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনার নমুনা পরীক্ষা করতে দেন। সেখান থেকে গতকাল বুধবার রাতে মুঠোফোনের মাধ্যমে তাঁকে তাঁর শরীরে করোনায় পজিটিভ হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে।

এদিকে একইভাবে সরকারি কর্মকাণ্ড পরিচালনা ও ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করতে গিয়ে ধুনট উপজেলার ভান্ডারবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান আতিকুল করিম করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হন। গতকাল রাতে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে তাঁর শরীরে করোনা পজিটিভের বিষয়টি নিশ্চিত করে।

ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা হাসিবুল হাসিব বলেন, ধুনট পৌরসভার মেয়র এ জি এম বাদশা ও ভান্ডারবাড়ি ইউপি আতিকুল করিমের শারীরিক অবস্থা এখন পর্যন্ত ভালো আছে। তাই তাঁদের নিজ নিজ বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টিনে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন