বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) চাঁদপুরের উপপরিচালক মো. কায়সারুল ইসলাম প্রথম আলোকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি লঞ্চ কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে বলেন, লঞ্চটির ইঞ্জিনকক্ষ থেকে বেশি ধোঁয়া বের হচ্ছে দেখে কোনো একজন যাত্রী জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯–এ কল করে সহযোগিতা চান। নৌ পুলিশ মোহনপুর এলাকায় ঘাটে লঞ্চটি আটকে ফেলে। এতে যাত্রীরা কিছুটা আতঙ্কিত হলেও কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। তবে বিআইডব্লিউটিএর নির্দেশে মোহনপুর নৌ পুলিশ আগুনের বিষয়টি নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত লঞ্চটি যাত্রীসহ আটকে রাখে।

মোহনপুর নৌ পুলিশের ইনচার্জ ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, ‘আমরা ছাড়াও খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ও কোস্টগার্ড দল লঞ্চটিতে আগুনের কোনো কিছু দেখেনি। পরে বিআইডাব্লিউটিএর নির্দেশে আজ রোববার ভোর সাড়ে পাঁচটার দিকে লঞ্চটি যাত্রীসহ বরিশালের উদ্দেশে ছেড়ে যায়।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন