বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আজ শনিবার দুপুরে জেলা বিএনপির কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন জেলা বিএনপির আহ্বায়ক হাফিজুর রহমান। এ সময় অন্যদের মধ্যে জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক নাসীর উদ্দিন ও এ জেড এম রফিকুল ইসলাম, সদস্য আবু বকর সিদ্দিক, মামনুর রহমান রিপন, শফিউল আজম রানা, নিয়ামতপুর উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক মোস্তাফিজুর রহমান প্রমুখ বক্তব্য দেন।

ওই তিন নেতাকে সাত দিনের মধ্যে মুক্তি দেওয়া না হলে কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেওয়া হয় সংবাদ সম্মেলনে।

লিখিত বক্তব্যে হাফিজুর রহমান বলেন, হেফাজত কর্মীদের হত্যার প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে গত ৩০ মার্চ দলীয় কার্যালয়ের সামনে বিএনপি শান্তিপূর্ণভাবে বিক্ষোভ কর্মসূচি শুরু করে। কিন্তু বিএনপির কর্মসূচিতে পুলিশ বাধা দেয়। এতে বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের অর্ধশতাধিক নেতা-কর্মী আহত হন। ওই ঘটনায় পুলিশ জেলার বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাদের নাম উল্লেখ এবং অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মামলা করে। সর্বশেষ ওই মামলায় জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি নজমুল হক, জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নওগাঁ সদর আসন থেকে বিএনপির প্রার্থী জাহিদুল হক ও নওগাঁ পৌর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মিজানুর রহমান নওগাঁ চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জামিন চাইতে গেলে আদালত তাঁদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

হাফিজুর রহমান বলেন, ‘গ্রেপ্তার নেতাদের নিঃশর্ত মুক্তি চাই। এর পাশাপাশি বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে করা মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানাই। আগামী সাত দিনের মধ্যে গ্রেপ্তার নেতাদের মুক্তি দেওয়া না হলে কঠোর আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন