default-image

রাজশাহীর পবা উপজেলার নওহাটা পৌরসভায় একটি ভোটকেন্দ্রের বাইরে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী মেয়র প্রার্থীর গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে। আহত হয়েছেন এক সাংবাদিক। রোববার বেলা ১১টার দিকে নওহাটা পৌরসভার বাগধানী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের বাইরে এ ঘটনা ঘটে। এতে আধা ঘণ্টার বেশি সময় ভোট গ্রহণ বন্ধ ছিল।

বিদ্রোহী প্রার্থী আবদুল বারী খান অভিযোগ করেন, নৌকার সমর্থকেরা বহিরাগতদের নিয়ে ভোটকেন্দ্র দখল নিতে এসেছিলেন। প্রথমে তাঁরা কেন্দ্রের বাইরে পরপর তিনটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটান। এরপর ইটপাটকেল মারতে থাকেন। রামদা দিয়ে তাঁর গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ নীরব ভূমিকা পালন করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, বেলা ১১টার দিকে নৌকার মিছিল নিয়ে আসেন একদল মানুষ। তাঁদের হাতে লাঠিসোঁটা ছিল। এ সময় তাঁরা কেন্দ্রের বাইরে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটান। এতে ভোট দিতে আসা লোকজনের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

বিজ্ঞাপন

এদিকে এ ঘটনায় বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল বাংলাভিশনের ক্যামেরাপারসন জসিমউদ্দিন আহত হয়েছেন। তাঁর মাথায় ইটের আঘাত লেগেছে। জসিম বলেন, তিনি প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

ভোটার রাবেয়া খাতুন বলেন, তিনি সকালে ভোট দিতে আসার সঙ্গে সঙ্গে ঝামেলা শুরু হয়। ভয়ে কেন্দ্র থেকে চলে যান। দুপুরের পর তিনি আবার ভোট দিতে এসেছেন।

কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা প্রদ্যুৎকুমার প্রামাণিক বলেন, বেলা ১১টার দিকে হঠাৎ কিছু লোক কেন্দ্রের বাইরে আসেন। তাঁরা কেন্দ্রের ভেতর ঢোকার চেষ্টা করেন। এলাকাবাসী এতে প্রতিরোধ করেন। পুলিশ প্রশাসনও চলে আসে। এ ঘটনায় ৪০ মিনিটের মতো ভোট বন্ধ ছিল। বেলা ২টা পর্যন্ত ১ হাজার ৬৯৫ ভোটের মধ্যে ৫৫ শতাংশের মতো ভোট গ্রহণ হয়েছে। লোকজন ভয়ে চলে গেলেও ঘণ্টাখানেকের মধ্যে আবার ভোট দিতে চলে আসেন।

কেন্দ্রের বাইরে একটু ঝামেলা হয় বলে জানান রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার গোলাম রুহুল কুদ্দুস। তিনি বলেন, পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে। কারও গাড়ি ভাঙচুরের বিষয়টি তিনি জানেন না। এ ঘটনায় কেউ আটকও হননি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন