default-image

শেরপুরের নকলা উপজেলায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে আটটি বসতঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। আজ মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার জালালপুর এলাকায় এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। আগুন নিয়ন্ত্রণের জন্য ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি দেরিতে আসায় বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী প্রায় এক ঘণ্টা শেরপুর-ঢাকা মহাসড়ক অবরোধ করে রাখেন।

শেরপুর ফায়ার সার্ভিস স্টেশন ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে নকলা উপজেলার জালালপুর এলাকার বাসিন্দা শরাফত আলীর বসতঘরের বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। পরে তা দ্রুত আশপাশে ছড়িয়ে পড়ে। এতে শরাফত আলী, হাবিজুল হক, মনির হোসেন, আমিনুল ইসলাম, নূর ইসলাম, শামছুল হক ও ইদ্রিস আলীর বসতঘর পুড়ে যায়। সংবাদ পেয়ে আধা ঘণ্টা পর নালিতাবাড়ী থেকে ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয় এলাকাবাসীর সহযোগিতায় প্রায় তিন ঘণ্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

বিজ্ঞাপন

শেরপুর থেকে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি ঘটনাস্থলে পৌঁছাতে বিলম্ব হওয়ায় এলাকাবাসী উত্তেজিত হয়ে শেরপুর-ঢাকা মহাসড়ক অবরোধ করেন। এ সময় তাঁরা নকলা উপজেলা সদরে ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের অসমাপ্ত কাজ দ্রুত শেষ করার দাবি জানান। পরে উপজেলা নির্বাহী নির্বাহী কর্মকর্তা জাহিদুর রহমান ও নকলা পৌরসভার মেয়র হাফিজুর রহমানের আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে এলাকাবাসী অবরোধ প্রত্যাহার করে নেন।

নালিতাবাড়ী ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মীর মোহাম্মদ মারুফ আজ রাতে প্রথম আলোকে বলেন, বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত ঘটে। প্রাথমিক হিসেবে প্রায় ৩০ লাখ টাকার সম্পদের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ায় প্রায় ৫০ লাখ টাকার মালামাল রক্ষা করা সম্ভব হয়েছে।

মন্তব্য পড়ুন 0