পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, সাখাওয়াত ও শোয়েব দুজন বন্ধু। সম্প্রতি শোয়েবকে নওগাঁর পোরশা উপজেলায় বদলির আদেশ হয়। এ জন্য তিনি সাখাওয়াতকে সঙ্গে নিয়ে মোটরসাইকেলের করে বগুড়া থেকে নওগাঁয় এলজিইডি কার্যালয়ে যোগ দিতে যাচ্ছিলেন। তাঁরা দুপচাঁচিয়া বাসস্ট্যান্ড এলাকায় পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাকের সঙ্গে মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই শোয়েব নিহত হন। গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয় লোকজন সাখাওয়াতকে উদ্ধার করে দুপচাঁচিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠালে সেখানকার চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

দুপচাঁচিয়া থানা-পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) নাসির উদ্দিন বলেন, শোয়েব মোটরসাইকেল চালাচ্ছিলেন এবং সাখাওয়াত পেছনে বসে ছিলেন। পণ্যবাহী একটি ট্রাক মোটরসাইকেলটিকে চাপা দিয়ে পালিয়ে গেছে। ট্রাকটি জব্দ করা সম্ভব হয়নি। সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরির পর ময়নাতদন্ত ছাড়াই পরিবারের লোকজনের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে।