বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মিতু ঝিনাইদহ সদর উপজেলার আড়ুয়াডাঙ্গা গ্রামের কৃষক আজিজুল ইসলামের মেয়ে। চার ভাইবোনের মধ্যে সে দ্বিতীয়। তার বাবা অন্যের জমিতে কাজ করে সংসার চালান। মিতু ঝিনাইদহ শহরের ফজর আলী গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজের দশম শ্রেণির ছাত্রী। বাড়ি থেকে বিদ্যালয়ের দূরত্ব প্রায় পাঁচ কিলোমিটার। তিন বছর আগে মিতুকে একটি সাইকেল কিনে দেন তার খালা। ওই সাইকেলে চড়ে সে বিদ্যালয়ে যাতায়াত করত।

মিতু জানায়, ছোটবেলা থেকেই তার সাইকেল চালানোর খুব শখ ছিল। স্কুলে যাতায়াত করতে করতে সে সাইকেল চালানোয় পারদর্শী হয়ে ওঠে। ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবসে সাইক্লিং প্রতিযোগিতায় নাম লেখায় সে। এ প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার জন্য সে সাইকেল নিয়ে সকাল নয়টায় শহরের বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান স্টেডিয়ামে এসে পৌঁছায়। সাইকেলটি স্টেডিয়ামের ভেতর একটি জায়গায় রেখে প্রতিযোগিতার বিষয়ে খোঁজ নিতে যায়। মুহূর্তের মধ্যে সাইকেলটি চুরি হয়ে যায়।

মিতু আরও জানায়, তখন বেশ কয়েকজনের কাছে সাইকেল ধার চেয়েছিল। কিন্তু কেউ দেয়নি। অল্প বয়সের একটি ছেলে সাইকেল দিয়ে সহযোগিতা করে। প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে সে চ্যাম্পিয়ন হয়।

ইউএনও এস এম শাহিন বলেন, সাইক্লিং প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পরও মিতু কান্নাকাটি করছিল। তখনই মেয়েটিকে একটি নতুন সাইকেল দেওয়ার কথা জানান তিনি। ব্যক্তিগত অর্থে সোমবার তিনি সাইকেলটি মিতুর হাতে তুলে দিয়েছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন