সিডিএ সূত্র জানায়, আউটার রিং রোডের সংযোগ হিসেবে এই ফিডার রোডের অংশ পড়েছিল ওয়াসার পয়োনিষ্কাশন প্রকল্প এলাকায়। এতে আপত্তি জানিয়ে আসছিল ওয়াসা। পরে সড়কের নতুন স্থান নির্ধারণ নিয়ে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়রের নেতৃত্বে উচ্চপর্যায়ের কমিটি গঠন করা হয়েছিল।

সিডিএর এক প্রকৌশলী জানান, নগরের বড়পুল থেকে আউটার রিং রোড পর্যন্ত প্রায় আড়াই কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের সড়ক নির্মাণ করা হবে। সড়কের প্রশস্ততা ১০০ ফুট। নগরের চৌচালা এলাকায় সড়কের প্রায় ৭০০ মিটার অংশ পড়েছিল ওয়াসার নির্ধারিত পয়োনিষ্কাশন প্রকল্প এলাকার মাঝখানে।

সিডিএর আজকের সভায় তিনটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। এগুলো হলো—
১. এখন ফিডার রোডটি ওয়াসার মালিকানাধীন জায়গায় হবে। তবে তা প্রকল্পের এলাকার মাঝখানে না গিয়ে একেবারে উত্তর দিকে নির্মাণ করা হবে।
২. বিদ্যমান চৌচালা সড়ক বন্ধ করে দেওয়া হবে। তবে নতুন প্রস্তাবিত জায়গায় দুই লেনের বিকল্প সড়ক নির্মাণ হবে।
৩. বন্ধের আগে বর্তমানে সচল থাকা চৌচালা সড়কটির গর্তগুলো সংস্কারে সিটি করপোরেশন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।

সিডিএর প্রধান প্রকৌশলী কাজী হাসান বিন শামস প্রথম আলোকে বলেন, এখন ফিডার রোড ও পয়োনিষ্কাশন প্রকল্প বাস্তবায়ন নিয়ে জটিলতার অবসান হয়েছে। ওয়াসার পয়োনিষ্কাশন প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক আরিফুল ইসলাম একই কথা বলেছেন।

আজকের সভায় সভাপতিত্ব করেন সিডিএ চেয়ারম্যান এম জহিরুল আলম। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল এম শাহজাহান, চট্টগ্রাম ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক এ কে এম ফজলুল্লাহ, চট্টগ্রাম নগর পুলিশের কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর এবং অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) শ্যামল কুমার নাথ।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন