নিহত যুবকের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সৌরভ বাড়ি থেকে বের হয়ে দোকানে যান। এরপর অনেক রাত হয়ে গেলেও তিনি দোকান থেকে বাড়ি না ফেরায় পরিবারের লোকজন তাঁকে খুঁজতে শুরু করেন। এ সময় সৌরভের মুঠোফোনও বন্ধ ছিল। এরপর আজ সকালে নলশীষা নদীর পাড়ে স্থানীয় লোকজন সৌরভের লাশ পড়ে থাকতে দেখেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে।

নবাবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফেরদৌস ওয়াহিদ জানান, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠানো হয়েছে। লাশের সুরতহাল করা হয়েছে। তাঁর দুই পায়ের রগ কাটা ছিল। গলায় রক্ত জমাটবাঁধা অবস্থায় ছিল। সৌরভ যেহেতু ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন, তাই তাঁর কাছে থাকা টাকা ছিনতাইয়ের জন্য এ ধরনের ঘটনা ঘটতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন