default-image

নরসিংদীর পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদারের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। তাঁর করোনা সংক্রমণের মৃদু উপসর্গ থাকলেও এখন পর্যন্ত শারীরিক অবস্থা ভালো। চিকিৎসার জন্য আজ রোববার রাজধানী ঢাকার রাজারবাগ কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন তিনি।

নরসিংদীর সিভিল সার্জন মো. নূরুল ইসলাম রোববার বিকেলে প্রথম আলোকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, কয়েক দিন ধরে শরীরে জ্বর অনুভব করার তথ্য জানতে পেরে শনিবার করোনা পরীক্ষার জন্য পুলিশ সুপারের নমুনা সংগ্রহ করা হয়। ওই দিনই রাজধানীর মহাখালীর ইনস্টিটিউট অব পাবলিক হেলথে (আইপিএইচ) নমুনা পরীক্ষা শেষে রাতে পাওয়া ফলাফলে তাঁর করোনা পজিটিভ আসে।

গত ৭ এপ্রিল জেলার পলাশ উপজেলায় প্রথম করোনাভাইরাসে সংক্রমিত ব্যক্তি শনাক্ত হয়। এ পর্যন্ত জেলায় করোনাভাইরাসে সংক্রমিতের মোট সংখ্যা ২ হাজার ৫৩৯। অন্যদিকে করোনামুক্ত হয়েছেন মোট ২ হাজার ৪২৭ জন। সুস্থতার হার ৯৫ দশমিক ৬০ শতাংশ। এর আগে জেলা পুলিশের দুজন অতিরিক্ত পুলিশ সুপারসহ প্রায় ৭০ জন পুলিশ সদস্য কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত হয়েছেন। তাঁদের সবাইকে চিকিৎসকের পরামর্শমতো কোভিড ডেডিকেটেড নরসিংদী জেলা হাসপাতালে ও পুলিশ লাইনসে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদার মুঠোফোনে প্রথম আলোকে জানান, কয়েক দিন ধরে জ্বর অনুভূত হওয়ায় করোনা সন্দেহে নমুনা পরীক্ষা করালে তাঁর করোনা পজেটিভ আসে। দ্রুত করোনামুক্ত হতে রোববার সকালে রাজারবাগ কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। কীভাবে আক্রান্ত হলেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘পেশাগত দায়িত্ব পালনে বিভিন্ন স্থানে যাওয়া এবং বহু মানুষের সঙ্গে কথা বলার মধ্যেই হয়তো কোনোভাবে আক্রান্ত হয়ে থাকতে পারি। তবে সেভাবে কোনো শারীরিক জটিলতা নেই।’

বিজ্ঞাপন

সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, পুলিশ সুপারসহ গত ২৪ ঘণ্টায় জেলাজুড়ে নতুন করে ৫ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। গত ১৩ নভেম্বর ২৪ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য রাজধানীর মহাখালীর ইনস্টিটিউট অব পাবলিক হেলথে (আইপিএইচ) পাঠানো হয়। শনিবার রাতে হাতে পাওয়া এসব নমুনা পরীক্ষার ফলাফলে পাঁচজনের করোনা শনাক্ত হয়। তাঁদের মধ্যে সদর উপজেলার দুজন, মনোহরদী উপজেলার দুজন ও রায়পুরা উপজেলার একজন।

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সর্বশেষ হিসাব অনুযায়ী, রোববার পর্যন্ত জেলার ৬টি উপজেলা থেকে মোট ১৪ হাজার ৬২ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করা হয়েছে। কোভিডে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে সদর উপজেলায় ১ হাজার ৪৭১ জন, শিবপুরে ২৬৪, পলাশে ২৯৬, মনোহরদীতে ১৮১, বেলাবতে ১৫০ ও রায়পুরায় ১৭৭ জন রয়েছেন। বর্তমানে কোভিডে আক্রান্ত ৯ জন কোভিড ডেডিকেটেড ১০০ শয্যাবিশিষ্ট নরসিংদী জেলা হাসপাতালে এবং ৯৬ জন হোম আইসোলেশনে আছেন। আক্রান্ত হওয়ার পর এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৪২৭ জন। তাঁদের মধ্যে সদর উপজেলার ১ হাজার ৩৯৩ জন, শিবপুর উপজেলার ২৫৬, পলাশ উপজেলার ২৭৯, মনোহরদী উপজেলার ১৭৮, বেলাব উপজেলার ১৪৯ ও রায়পুরা উপজেলার ১৭২ জন রয়েছেন।

মন্তব্য পড়ুন 0