নাগরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সরকার আবদুল্লাহ আল মামুন হতাহতের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিনজনকে আটক করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার মোকনা ইউনিয়নের ডাকাতমারা গ্রামের আবদুর রশিদের সঙ্গে সৎভাই আতোয়ারের দীর্ঘদিন ধরে জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। আজ সকাল সাড়ে ১০টার দিকে আবদুর রশিদের নাতি মারুফ হোসেন (১৩) স্কুলে যাওয়া জন্য বাড়ি থেকে বের হয়। এ সময় আতোয়ার হোসেন (৫০) তাকে জোর করে তুলে নিয়ে তাঁর বাড়িতে একটি ঘরে আটকে রাখেন। আটকে রাখার খবর পেয়ে মারুফের দাদা আবদুর রশিদ তাঁর আত্মীয় সিএনজিচালিত অটোরিকশাচালক সুমন ও সুজনকে সঙ্গে নিয়ে আতোয়ারের বাড়িতে যান।

এ সময় আতোয়ারের পক্ষের লোকজন তাঁদের ওপর হামলা করেন। তাঁদের লাঠি ও ধারালো অস্ত্রের আঘাতে তিনজনই আহত হন। এ সময় তাঁদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন গিয়ে তাঁদের উদ্ধার করেন। উদ্ধার করে মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালে নেওয়ার পথে সুমনের মৃত্যু হয়। পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন