default-image

টাঙ্গাইলের নাগরপুরে দাম্পত্য কলহের জেরে এক ব্যক্তি তাঁর স্ত্রীকে পুড়িয়ে হত্যা করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় শনিবার নিহত নারীর স্বামী জয়নাল আবেদীনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ।

নিহত গৃহবধূর নাম রোজিনা (২২)। তিনি নাগরপুরের ভারড়া ইউনিয়নের রেহাই মীরকুটিয়া গ্রামের জয়নাল আবেদীনের স্ত্রী এবং সহবতপুর ইউনিয়নের কোকাদাইর গ্রামের মজের আলীর মেয়ে।

বিজ্ঞাপন

শুক্রবার রাত এগারোটার দিকে অগ্নিদগ্ধ রোজিনাকে উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে সেখান থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর পরামর্শ দেওয়া হয়। শনিবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তাঁর মৃত্যু হয়।

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন জানান, চার বছর আগে রেহাই মীরকুটিয়া গ্রামের নওশের আলীর ছেলে মাটিকাটাশ্রমিক জয়নাল আবেদীনের সঙ্গে কোকাদাইর গ্রামের রোজিনার বিয়ে হয়। তাঁদের জান্নাতুল নামের দেড় বছরের এক কন্যা সন্তান রয়েছে। শুক্রবার রাতে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়। রাত ১১টার দিকে অগ্নিদগ্ধ রোজিনাকে উদ্ধার করে স্বজন ও প্রতিবেশীরা টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। শনিবার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তাঁর মৃত্যু হয়।

রোজিনার শ্বশুরবাড়ির দাবি, রোজিনা মশা নিধনের জন্য জ্বালানো কয়েলের আগুনে অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা গেছেন। তবে তাঁর ভাই রমজান অভিযোগ করেন, তাঁর বোনকে পরিকল্পিতভাবে স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন হত্যা করেছেন।

নাগরপুর থানার পরিদর্শন (তদন্ত) বাহালুল খান বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে, রোজিনা ঘরের পেছনের কাঠবাগানে কেরোসিন ঠেলে আগুন ধরিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। এ ঘটনায় এখনো মামলা হয়নি। তবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাঁর স্বামীকে আটক করা হয়েছে। রোজিনার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0