বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

চেয়ারম্যান পদে মননোনয়পত্র বাতিল হওয়া প্রার্থীরা হলেন নেওয়াশী ইউনিয়নের বাংলাদেশ ইসলামী আন্দোলন মনোনীত প্রার্থী আবদুল মান্নান, নুনখাওয়ার ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবুল হোসাইন, রামখানা ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী আবদুস সাত্তার, বল্লভেরখাসের স্বতন্ত্র প্রার্থী নুর আলম প্রধান।

ভিতরবন্দ ইউনিয়নে প্রার্থী হয়েছেন বাবা–ছেলে। তাঁরা হলেন সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান উপজেলা বিএনপির সাবেক জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি শফিউল আলম শফি ও তাঁর ছেলে ফয়সাল শামীম। বামনডাঙ্গা ইউনিয়নে প্রার্থী হওয়া দম্পতি হলেন বর্তমান চেয়ারম্যান জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী আমজাদ হোসেন ব্যাপারী ও তাঁর স্ত্রী মরিয়ম বেগম। এই চারজনের প্রার্থী হওয়া নিয়ে এলাকায় আলোচনার সৃষ্টি হয়েছে। তাঁরা শেষ পর্যন্ত ভোটের লড়াইয়ে থাকবেন নাকি একজন করে সরে দাঁড়াবেন, সেই প্রশ্ন সবার মুখে।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে ভিতরবন্দ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা শফিউল আলম বলেন, ‘আমি নির্বাচনে আছি, থাকব। আমার ছেলে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেবে।’

বামনডাঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন জানিয়েছেন, তাঁর স্ত্রী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেবেন।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন জানান, ২৮ নভেম্বর উপজেলার ১৪ ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন