default-image

নাটোরের গুরুদাসপুরে মিঠু মন্ডল (৩০) নামে এক ব্যক্তির বাম পা কেটে শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল শনিবার রাত ৯টার দিকে উপজেলার খুবজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের সামনে এই ঘটনা ঘটে।


পুলিশ মিঠুকে উদ্ধার করে প্রথমে গুরুদাসপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করে। অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। তিনি খুবজীপুর গ্রামের সাইদুল মন্ডলের ছেলে।


গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোজাহারুল ইসলাম এ খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, মিঠুর বিরুদ্ধে গুরুদাসপুর থানায় হত্যা, চাঁদাবাজি, ছিনতাইসহ নানা অভিযোগে ১৪টি মামলা আছে। এ ঘটনায় মিঠুর পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় মামলা হবে।

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে জানা গেছে, গতকাল রাতে মিঠু বাড়ি থেকে পাশের খুবজীপুর বাজারে যাচ্ছিলেন। খুবজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের সামনে পৌঁছালে দুর্বৃত্তরা তাঁকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপায়। কুপিয়ে তাঁর বাম পা শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন করে রাস্তায় ফেলে রাখে। মিঠুর চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে গেলে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যান।


ওসি বলেন, মিঠুর বাবা পুলিশের কাছে অভিযোগ করেছেন যে পারিবারিক বিরোধে তাঁর ছেলের প্রতি এমন সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে। তবে পুলিশ এখনো কারণ জানতে পারেনি। এ ব্যাপারে তদন্ত হবে। ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের ধরতে মাঠে নেমেছে পুলিশ।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0