জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, আগের ২৪ ঘণ্টায় জেলায় শনাক্তের হার ছিল ৩৯ দশমিক ৮৬ শতাংশ। সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতিতে স্বাস্থ্য বিভাগসহ প্রশাসন উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে। ৩১ শয্যার করোনা ওয়ার্ডকে ৫০ শয্যায় উন্নীত করেও সবাইকে হাসপাতালে ভর্তি নেওয়া যাচ্ছে না। বর্তমানে এই হাসপাতালে ৫১ রোগী ভর্তি। পরিস্থিতি সামাল দিতে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী, স্থানীয় সাংসদ ও পৌর মেয়র ব্যক্তিগতভাবে হাসপাতালে অক্সিজেন সিলিন্ডার সরবরাহ করেছেন। প্রশাসন ও পুলিশ তাদের তৎপরতা আগের চেয়ে অনেক বাড়িয়েছে। অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৯টি মামলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার পর্যন্ত নাটোর জেলায় মোট ১৫ হাজার ৯১৪টি নমুনা পরীক্ষা করে ২ হাজার ৫১২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

বাগাতিপাড়ায় ব্যাংক লকডাউন

এদিকে পাঁচ কর্মকর্তা-কর্মচারীর করোনা শনাক্ত হওয়ায় আজ বিকেল থেকে বাগাতিপাড়ার অগ্রণী ব্যাংক শাখা অনির্দিষ্টকালের জন্য লকডাউন ঘোষণা করেছে স্থানীয় প্রশাসন। আজ দুপুরে উপজেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) প্রিয়াংকা দেবী পাল এ বিষয়ে একটি গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেন। ইউএনও জানান, অগ্রণী ব্যাংকের বাগাতিপাড়া শাখা ব্যবস্থাপকের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ১৭ জুন বিকেল থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ব্যাংকটির সব কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার পর্যন্ত নাটোর জেলায় মোট ১৫ হাজার ৯১৪টি নমুনা পরীক্ষা করে ২ হাজার ৫১২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ পর্যন্ত করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৪০ জনের। করোনা থেকে মোট সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ৫৫৭ জন। তবে এখনো ৯৫৫ জন রোগী চিকিৎসাধীন।