default-image

ময়মনসিংহের নান্দাইলে গোসল করার সময় পানির চৌবাচ্চার দেয়াল ধসে এক নারীসহ দুজন নিহত হয়েছেন। এ সময় একই বাড়ির অপর দুই শিশু গুরুতর আহত হয়েছে। আজ শুক্রবার বেলা একটার দিকে উপজেলার চণ্ডীপাশা ইউনিয়নের মধ্য বাঁশহাটি গ্রামের আবদুল বারেকের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ব্যক্তিরা হলেন গৃহবধূ সাউদা বেগম (২০) এবং তাঁর শ্বশুর মো. আবদুর রহমান (৬৫)। আহত দুই শিশু মো. রাব্বি মিয়া (১৩) ও রোহন মিয়া (৭)।

গ্রাম্য রাজমিস্ত্রি দিয়ে নির্মিত চৌবাচ্চাটির দেয়াল ছিল পাঁচ ইঞ্চি পুরু। গত শনিবার এর নির্মাণকাজ শেষ হয়। গতকাল প্রথম বৈদ্যুতিক পাম্প দিয়ে চৌবাচ্চায় পানি ভরা হয়।

বাড়ির সদস্য ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, ওই বাড়ির পশ্চিম দিকে আট ফুট দৈর্ঘ্য, ছয় ফুট প্রস্থ ও ছয় ফুট উচ্চতার পানির একটি চৌবাচ্চা নির্মাণ করা হয়। গ্রাম্য রাজমিস্ত্রি দিয়ে নির্মিত চৌবাচ্চাটির দেয়াল ছিল পাঁচ ইঞ্চি পুরু। গত শনিবার এর নির্মাণকাজ শেষ হয়। গতকাল প্রথম বৈদ্যুতিক পাম্প দিয়ে চৌবাচ্চায় পানি ভরা হয়। গোসলের সুবিধার জন্য চৌবাচ্চার চারপাশের দেয়ালে পানির ট্যাপ লাগানো ছিল। ১০-১৫ জন একসঙ্গে চারপাশে দাঁড়িয়ে গোসল করার ব্যবস্থা ছিল সেখানে।

বিজ্ঞাপন

আজ বেলা একটার দিকে গোসল করার সময় চৌবাচ্চার চারপাশের দেয়াল একসঙ্গে চারদিকে ধসে পড়ে। এ সময় দেয়ালের নিচে চাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান গৃহবধূ সাউদা বেগম (২০)। তিনি ওই বাড়ির মো. মামুনুর রশিদের স্ত্রী। নুসরাত নামে ২৫ দিন বয়সী এক কন্যাসন্তান রয়েছে তাঁর। এ ছাড়া দেয়ালচাপায় গুরুতর আহত হন মো. আবদুর রহমান (৬৫), মো. রাব্বি মিয়া (১৩) ও রোহন মিয়া (৭)। আহত ব্যক্তিদের সিএনজিচালিত অটোরিকশায় করে দ্রুত ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান বৃদ্ধ আবদুর রহমান।

default-image

বিকেলের দিকে সরেজমিনে ওই বাড়িতে দেখা যায়, বাড়িতে শোকাবহ পরিবেশ। পরিবারের সদস্যরা সবাই কান্নারত। কেউ কথা বলার মতো অবস্থায় ছিলেন না। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে আশপাশের গ্রাম থেকে শত শত মানুষ ওই বাড়িতে ছুটে এসেছেন।

চৌবাচ্চাটির দেয়াল পানির চাপ ধরে রাখার মতো উপযুক্ত করে বানানো হয়েছিল কি না, এ বিষয়ে রাজমিস্ত্রির বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে এ বিষয়ে নান্দাইল উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলী মো. আল-আমীন সরকার প্রথম আলোকে বলেন, পানির প্রবল চাপ ধরে রাখার মতো পানির ট্যাংক বা চৌবাচ্চা তৈরি করা না হলে সেটি ভেঙে পড়তে পারে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন