বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মোয়াজ্জেমপুর ইউনিয়নের তসরা গ্রামের বাসিন্দা ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের উপকমিটির সম্পাদক মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, তাছলিমা আক্তারকে বিজয়ী করার জন্য জেলা ও স্থানীয় নেতা-কর্মীরা অনেক পরিশ্রম করেছেন। একজন নারী হিসেবে তাঁর বিজয়ে দলের স্থানীয় ও জেলার নেতা-কর্মীরা খুবই খুশি হয়েছেন।

নান্দাইল উপজেলার ১১টি ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে মোট ৬৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এই বিপুলসংখ্যক প্রার্থীর মধ্যে তাছলিমা আক্তার ছিলেন একমাত্র নারী প্রার্থী।

তাছলিমা আক্তার মোয়াজ্জেমপুর ইউনিয়নের কানুরামপুর গ্রামের বাসিন্দা। নান্দাইল-বালিপাড়া আঞ্চলিক মহাসড়কের পাশেই তাঁর বাড়ি। তাঁর স্বামী মুর্শেদ আলী ছিলেন মোয়াজ্জেমপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি। ২০১৯ সালের ১ ফেব্রুয়ারি মুর্শেদ আলী দুর্বৃত্তদের হাতে খুন হন। তাছলিমা এরপর একা হয়ে পড়েন। বর্তমানে তিনি স্বামীর মাছ চাষের ব্যবসা দেখাশোনা করছেন। এ বিষয়ে তাছলিমা বলেন, স্বামী হত্যার মামলাটি বর্তমানে জেলা জজ আদালতে শুনানির অপেক্ষায় রয়েছে।

ইউপি চেয়ারম্যান হিসেবে কাজ করার লক্ষ্য সম্পর্কে জানতে চাইলে তাছলিমা আক্তার বলেন, তিনি যেহেতু একজন নারী, তাই নারী সমাজের উন্নয়ন করার জন্য তিনি বিশেষ ভূমিকা রাখবেন। এ ছাড়া তিনি সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত ইউনিয়ন গড়ে তোলার জন্য কাজ করবেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন