default-image

নাফ নদীতে মাছ ধরতে গিয়ে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড পুলিশের (বিজিপি) গুলিতে মোহাম্মদ ইসলাম (৩৫) নামের এক বাংলাদেশি জেলে গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা গেছেন। শনিবার রাত সাড়ে সাতটার দিকে নাফ নদীর জলিলের দিয়া এলাকায় এ গুলির ঘটনা ঘটে। কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ রোববার দুপুরে ওই জেলে মারা যান।

নিহতের তথ্য নিশ্চিত করে টেকনাফ মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবদুল আলীম বলেন, এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। নিহত মোহাম্মদ ইসলাম উপজেলার টেকনাফ সদর ইউনিয়নের বরইতলী গ্রামের গুরা মিয়ার ছেলে।

নিহতের পরিবার ও বিজিবি সূত্রে জানা যায়, শনিবার একটি ছোট্ট নৌকায় করে দুই জেলে নাফ নদীতে মাছ শিকারে যান। ওই দিন বিকেলে জলিলের দিয়া নামের জায়গায় তাঁরা মাছ ধরছিলেন। হঠাৎ মিয়ানমার জলসীমানা থেকে বিজিপির সদস্যরা তাঁদের ওপর গুলি শুরু করেন। এতে একজন গুলিবিদ্ধ হন। খবর পেয়ে স্থানীয় জেলেরা ঘটনাস্থলে গিয়ে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় মোহাম্মদ ইসলামকে উদ্ধার করেন। দ্রুত তাঁকে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হয়। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়।

বিজ্ঞাপন

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক মো. সাজ্জাদ হোসেন বলেন, শনিবার রাতে স্থানীয় লোকজন গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এক ব্যক্তিকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন। তাঁর পেটের ডান পাশে গুলির আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাঁকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছিল। তবে তাঁর অবস্থা ছিল আশঙ্কাজনক।

জানতে চাইলে টেকনাফ ২ বিজিবির অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান প্রথম আলোকে বলেন, ইয়াবা পাচার ও চোরাচালান রোধ করতে ২০১৭ সালের ১৭ এপ্রিল থেকে নাফ নদীতে মাছ ধরা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এর মধ্যে কিছু লোক নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মাছ ধরে আসছিলেন। তিনি আরও বলেন, মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিজিপি) গুলিতে বাংলাদেশি জেলে নিহত হওয়ার ঘটনায় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) প্রতিবাদ জানিয়ে একটি চিঠি পাঠানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে।

মন্তব্য পড়ুন 0