বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নুরুল ইসলাম আজ মঙ্গলবার প্রথম আলোকে জানান, একটি কাজে সোমবার দুপুরে তিনি উপজেলা ভূমি কার্যালয়ে যান। ওই কার্যালয়ের বারান্দা থেকে জগন্নাথপুর থানার উপপরিদর্শক সফিকুল ইসলাম তাঁকে আটক করে হাতকড়া পরান। এ সময় তিনি আটকের কারণ জানতে চাইলে এসআই সফিকুল বলেন, ‘তুই মার্ডার (হত্যা) করছিস, আয় থানায়’ বলে হাতকড়া পরিয়ে দেন। পরে উপজেলা পরিষদের সামনে দিয়ে হেঁটে থানায় নিয়ে যান।

সেখানে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী তাঁর বাবার নাম জানতে চান। বাবার নাম বলার পর তাঁকে ছেড়ে দিতে বলেন তিনি। পরে এসআই সফিকুল হক সাদা কাগজে স্বাক্ষর রেখে তাঁকে ছেড়ে দেন।

নুরুল ইসলাম বলেন, ‘এ ঘটনায় আমি মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছি। আমি তিন দিন আগে জমিসংক্রান্ত বিরোধ নিয়ে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিই। বিষয়টি থানার এসআই আবদুস সাত্তার তদন্ত করছেন।’

জানতে চাইলে এসআই সফিকুল হক বলেন, ঘটনাটি ভুল–বোঝাবুঝি। নামের সঙ্গে মিল থাকায় ভুলক্রমে তাঁকে আটক করা হয়েছিল, পরে ছেড়ে দেওয়া হয়। তিনি বলেন, সোমবার উপজেলার লহরী গ্রামে একটি হত্যার ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার অভিযুক্ত ব্যক্তির নাম নুরুল।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন