default-image

ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ পুরাতন সড়কের নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় একটি কাপড়ের মার্কেটে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। আগুনে পুড়ে গেছে ওই মার্কেটের ছোট-বড় মিলিয়ে ২২টি দোকান। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দুটি স্টেশনের ছয়টি ইউনিট আধঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

আজ বুধবার সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। ব্যবসায়ীদের দাবি, অনেকের দোকানের ভেতর নগদ টাকাসহ লাখ লাখ টাকার মালামাল ছিল। নগদ টাকাসহ সব মালামাল পুড়ে গেছে। এতে দোকানমালিকেরা সর্বস্বান্ত হয়ে পড়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানায়, সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে সদর উপজেলার ফতুল্লা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ডিআইটি মাঠের পাশে টিনশেড কাপড়ের মার্কেটে আগুনের সূত্রপাত। মুহূর্তের মধ্যে আগুন আশপাশের দোকানগুলোতে ছড়িয়ে পড়ে। আগুনের শিখা ৩০-৪০ ফুট ওপরে উঠে যায়। আগুনের খবর পেয়ে ফতুল্লা পঞ্চবটি বিসিক শিল্পনগরীর ফায়ার সার্ভিস ও শহরের মণ্ডলপাড়া ফায়ার সার্ভিসের ছয়টি ইউনিট আধঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ততক্ষণে ওই মার্কেটের ২২টি দোকান পুড়ে যায়।

খবর পেয়ে ফতুল্লা পঞ্চবটি বিসিক শিল্পনগরীর ফায়ার সার্ভিস ও শহরের মণ্ডলপাড়া ফায়ার সার্ভিসের ছয়টি ইউনিট আধঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ততক্ষণে ওই মার্কেটের ২২টি দোকান পুড়ে যায়।

অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাহিদা বারিক। তিনি আগুনে পুড়ে যাওয়া ক্ষতিগ্রস্ত দোকানমালিকদের সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

বিজ্ঞাপন

ক্ষতিগ্রস্ত দোকানমালিক আব্বাস উদ্দিনের ভাষ্য, আগুনে তাঁর দোকানের ১০ লাখ টাকার কাপড় পুড়ে গেছে। আরেক ব্যবসায়ী শাহাবুদ্দিন মিয়া বলেন, সামনে রোজার ঈদকে সামনে রেখে দোকানে মালামাল মজুদ করে রেখেছিলেন। আগুনে তাঁর দোকানের সবকিছু পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। দোকান ও গুদাম মিলে ১৮ থেকে ২০ লাখ টাকার কাপড় ছিল।

default-image

এ বিষয়ে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের নারায়ণগঞ্জ অফিসের উপসহকারী পরিচালক আবদুল্লাহ আল আরেফিন বলেন, ওই কাপড়ের মার্কেটে দুই শতাধিক দোকান ছিল। আগুনে মার্কেটের ২২টি দোকান পুড়ে গেছে। দ্রুত আগুন নিয়ন্ত্রণে আনায় বাকি দোকানগুলো আগুনে পুড়ে যাওয়া থেকে রক্ষা পেয়েছে। তবে আগুনে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। তিনি বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়ে থাকতে পারে।

ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, আগুনে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। পুড়ে যাওয়া অধিকাংশই কাপড়ের দোকান। একটি ওয়ার্কশপ ও একটি টিনের দোকান রয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন