পুলিশ জানায়, সকালে কাজ শেষ করে মুন্না ও একই কারখানার শ্রমিক রাজন ও জাকির বাড়িতে ফিরছিলেন। মুন্না হেঁটে সামনের দিকে চলে যান এবং রাজন ও জাকির অনেক পেছনে ছিলেন। এ সময় ছয় থেকে সাতজন লোক মুন্নার সঙ্গে বাগ্‌বিতণ্ডায় জড়ান। একপর্যায়ে তাঁরা মুন্নাকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যান। এ সময় রাজন, জাকির ও স্থানীয় লোকজন পেছন থেকে ছুটে এসে মুন্নাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক মুন্নাকে মৃত ঘোষণা করেন।

জানতে চাইলে ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রকিবুজ্জামান প্রথম আলোকে বলেন, ছুরিকাঘাতে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। এটা ছিনতাই না পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড, সেটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। ওই শ্রমিকের সঙ্গে একজন নারী ছিলেন বলে জানা গেছে। ওই নারীকেও খোঁজা হচ্ছে। নিহত ব্যক্তির লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন