বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আয়েশার ভগ্নিপতি আলী আকবর জানান, মেয়েকে হারিয়ে তিনি (আয়েশা) মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন। সারাক্ষণ বিলাপ করছেন। তিনি এখন পাগলপ্রায়।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ফতুল্লা মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) দেবাশীষ কুণ্ডু প্রথম আলোকে বলেন, ট্রাকটি অনেক আগের। এটি বেডফোর্ড ইঞ্জিনের। কিছু কাগজ পাওয়া গেছে, ট্রাকটির ফিটনেস নেই। বিআরটিএতে কাগজপত্র যাচাই করতে দেওয়া হবে। ট্রাকচালক হাবিবুরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।

এসআই দেবাশীষ কুণ্ডু বলেন, শুক্রবার এমনিতে সড়ক ফাঁকা থাকে। এ কারণে দ্রুতগতিতে চালানোর কারণে ওই দুর্ঘটনা ঘটে। জিজ্ঞাসাবাদে চালক জানান, হঠাৎ রিকশাটি সড়কে উঠে এলে তিনি ব্রেক কষেও গাড়িটি নিয়ন্ত্রণ করতে পারেননি।

ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রকিবুজ্জামান প্রথম আলোকে বলেন, ট্রাকচাপায় বাবা-মেয়ের মৃত্যুর ঘটনায় মামলা হয়েছে। নিহত মেয়েটির মা বাদী হয়ে সড়ক পরিবহন আইনে মামলা করেছেন। ওসি বলেন, সড়ক পরিবহন আইনের সর্বোচ্চ শাস্তির ধারায় মামলাটি হয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শতে৴ এক শ্রমিকনেতা জানান, বেডফোর্ড ইঞ্জিনের অধিকাংশ ট্রাকের ফিটনেস মেয়াদোত্তীর্ণ। কিছু গাড়ির কাগজপত্র আছে, সেগুলোর সংখ্যা খুবই কম। পুলিশকে মাসোহারা দিয়ে ট্রাকগুলো সড়কে চলছে। মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ার কারণে এসব ট্রাকের দাম কম। চালক ও হেলপার মিলে কিনে এসব ট্রাক নিজেরাই চালান।

নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক জাহিদুল হক প্রথম আলোকে বলেন, ‘জেলা পরিষদের ডাকবাংলোর কারণে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ পুরোনো সড়কটি প্রশস্ত করার দাবিতে স্মারকলিপি প্রদান ও মানববন্ধনসহ নানা কর্মসূচি পালন করে আসছি। কিন্তু দাবি বাস্তবায়িত হয়নি। সেখানে প্রায়ই দুর্ঘটনা ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটছে। অবিলম্বে সড়কটি প্রশস্ত করা ও অবৈধ ট্রাকসহ যানবাহনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানাচ্ছি।’

জেলা পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম প্রথম আলোকে বলেন, এ ধরনের মৃত্যু কখনো কাম্য নয়। ট্রাকসহ যেসব যানের ফিটনেস নেই, সেগুলোর বিরুদ্ধে বিআরটিএসহ সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানকে নিয়ে যৌথ অভিযান চালানো হবে।

শুক্রবার দুপুরে শহরের চাষাঢ়া জেলা পরিষদের ডাকবাংলোর সামনে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ পুরোনো সড়কে ইটবোঝাই দ্রুতগতির একটি ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে ওষুধ ব্যবসায়ী আলতাফ হোসেন ও তাঁর মেয়ে মুক্তি আলীফের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় ট্রাকসহ চালককে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেন আশপাশের লোকজন। শুক্রবার দুপুরে শহরের জামতলার খালার বাসা থেকে বাবা আলতাফ হোসেনের সঙ্গে বিয়ের দাওয়াত খেতে ব্যাটারিচালিত রিকশায় সোনারগাঁ গ্রামের বাড়ি যাচ্ছিলেন মুক্তি আলীফ। বেপরোয়া ট্রাকের চাপায় বাবা-মেয়ে প্রাণ হারান।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন