default-image

সারা দেশের মতো নারায়ণগঞ্জ জেলায় দুটি সরকারি হাসপাতালসহ চারটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনার টিকা দেওয়া শুরু হয়েছে। আজ রোববার সকাল ১০টায় শহরের মণ্ডলপাড়ায় অবস্থিত নারায়ণগঞ্জ জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতালে জেলা সিভিল সার্জন ইমতিয়াজ আহমেদ প্রথম করোনা টিকা নিয়ে টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধন করেন।

এরপর থেকে জেলার ছয়টি কেন্দ্রে ২৪টি বুথে টিকাদান কার্যক্রম শুরু হয়। টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী আবুল আমিন, জেলা করোনাবিষয়ক ফোকাল পারসন নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম প্রমুখ। হাসপাতালটির বুথে নিবন্ধন কার্যক্রমের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

জেলায় প্রথম নারী হিসেবে করোনা টিকা নিয়েছেন হরিহরপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সামসুন নাহার বেগম। টিকা নেওয়ার পর তিনি বলেন, টিকা নেওয়ার পর তিনি কোনো সমস্যা অনুভব করছেন না। সুস্থ আছেন। সবাইকে করোনা টিকা নেওয়ার জন্যও আহ্বান জানান তিনি।

বিজ্ঞাপন

শহরের জামতলা এলাকার বাসিন্দা ৭২ বছর বয়সী মুক্তিযোদ্ধা করিম উল্লাহ বলেন, ‘টিকা নেওয়ার জন্য হাসপাতালে আধঘণ্টা বসেছিলাম। পরে টিকা নিয়েছি, কোনো সমস্যা অনুভব হচ্ছে না। কোন হাতে টিকা নিয়েছি, সেটাও বুঝতে পারছি না।’

জেলায় দুটি সরকারি হাসপাতালসহ চারটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রথম দিন ৬০০ জনকে করোনা টিকা দেওয়ার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে বলে জানান জেলা সিভিল সার্জন মোহাম্মদ ইমতিয়াজ। তিনি বলেন, এ পর্যন্ত জেলায় ১ হাজার ৫৬০ জন অনলাইনে নিবন্ধন করেছেন। অন্য জেলার তুলনায় নারায়ণগঞ্জে নিবন্ধনের সংখ্যা তুলনামূলক কম। তিনি সবাইকে নিবন্ধন করার আহ্বান জানিয়ে নির্ভয়ে করোনা টিকা নেওয়ার আহবান জানান।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন