বিজিবি, জনপ্রতিনিধি ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার সীমান্তবর্তী কালাকুমা গ্রামে ভোগাই নদী থেকে স্থানীয় লোকজন পাথর তুলছিলেন। এ সময় পাথরের সঙ্গে একটি গ্রেনেড উঠে আসে। এ সময় স্থানীয় ব্যক্তিরা তা দেখতে পেয়ে রামচন্দ্রকুড়া বিজিবি ক্যাম্পে খবর দেন। খবর পেয়ে বিজিবি সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে গ্রেনেডটি উদ্ধার করেন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে রামচন্দ্রকুড়া বিজিবি ক্যাম্পের কমান্ডার বিষয়টি নিশ্চিত করে কলেন, ‘আমরা ওই স্থান হেফাজতে নিয়ে কর্ডন করে রেখেছি। সেনাবাহিনীর বোমা নিষ্ক্রিয়কারী দল আসার পর পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ব্যাপারে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।’

জানেত চাইলে রামচন্দ্রকুড়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সাবেক চেয়ারম্যান খোরশেদ আলম বলেন, নদী থেকে পাথর তুলতে গিয়ে এটি পাওয়া গেছে। বিজিবির সদস্যরা গ্রেনেডটি নিজেদের হেফাজতে রেখেছেন। এটি নিষ্ক্রিয় করতে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।