বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ইউনিয়ন পরিষদ (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা ২০১৬ এর ৭ (ক) ধারা অনুযায়ী, কোনো প্রার্থী বা তাঁর পক্ষে কোনো রাজনৈতিক দল, অন্য কোনো ব্যক্তি, সংস্থা বা প্রতিষ্ঠান পথসভা ও ঘরোয়া সভা ব্যতীত কোনো জনসভা বা শোভাযাত্রা করতে পারবেন না। স্থানীয় সূত্র অনুযায়ী, এই নিয়ম ভেঙে নৌকার প্রার্থী সামছুল হকের পক্ষে দুই শতাধিক মোটরসাইকেল নিয়ে শোভাযাত্রাটি বের করা হয়েছিল।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ৫ জানুয়ারি চাঁপাপুর ইউপি নির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী সামছুল হকের সমর্থনে রোববার দুপুরে দুই শতাধিক মোটরসাইকেলের শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি চাঁপাপুর বাজার থেকে বিহিগ্রাম হাটখোলা অভিমুখে যাচ্ছিল। ঝাকইর তিনমাথা মোড়ে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা মাহিন ফুড প্রোডাক্টের একটি মিনি ট্রাক নিতীশ চন্দ্রের মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দেয়। এ সময় মোটরসাইকেল থেকে পড়ে গিয়ে নিতীশ চন্দ্র চাকার নিচে পিষ্ট হন এবং ঘটনাস্থলে মারা যান।

আদমদীঘি উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও ইউপি নির্বাচনের রিটানিং কর্মকর্তা আবদুর রশিদ বলেন, মোটরসাইকেলসহ যেকোনো শোভাযাত্রা নিষিদ্ধ। কিন্তু এরপরও প্রার্থীদের এ কাজ থেকে বিরত রাখা যায় না। কেউ অভিযোগ করলে বিষয়টি পুলিশকে জানানো হয়।

জানতে চাইলে আওয়ামী লীগ চেয়ারম্যান প্রার্থী সামছুল হক প্রথম আলোকে বলেন, এটি একটা দুর্ঘটনা। মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা আচরণবিধির লঙ্ঘন হলেও কর্মী-সমর্থকদের চাপে এসবের আয়োজন বাধ্য হয়ে করতে হয়। এ ছাড়া প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা আগে শোভাযাত্রা করায় তাঁকে এই অয়োজন করতে হয়েছে। তবে কর্মীর মৃত্যু তাঁকেও মর্মাহত করেছে।

আদমদীঘি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জালাল উদ্দীন বলেন, এ ঘটনায় থানায় নিহত ব্যক্তির পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো অভিযোগ না পাওয়ায় লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। ট্রাকের চালক পলাতক থাকায় ট্রাকটি থানা হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।

শোভাযাত্রা বিষয়ে ওসি জালাল উদ্দীন বলেন, এটি নির্বাচনী আচরণবিধির লঙ্ঘন। কিন্তু হঠাৎ এ ধরনের শোভাযাত্রার অয়োজন করা হয়, যেটি পুলিশের জানার বাইরে থাকে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন