বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

কর্মচারীরা বলেন, হোটেল স্টারের ইফতারসামগ্রীর মধ্যে নবাবি খেজুরের গুড়ের জিলাপির পাশাপাশি রয়েছে, শাহি জিলাপি, ছানার পোলাও, মিহিদানা, ছোলা, বুন্দিয়া, নিমকি, জালি কাবাব, চিকেন টিকিয়া, হালিম স্পেশাল, বোরহানি, ফালুদা, বিভিন্ন ফলের জুসসহ অন্যান্য সামগ্রী।

ইফতারি কিনতে আসা ডোমার উপজেলার সোনারায় ইউনিয়নের খাটুরিয়া গ্রামের সহিদ আহমেদ বলেন, মাঝেমধ্যে বাইরে থেকে কিছু ইফতারসামগ্রী কেনা হয়। এখানকার নবাবি খেজুরের গুড়ের জিলাপি খেতে ভালোই লাগে।

হোটেল স্টারের মালিক সঞ্জয় দাস বলেন, ‘এ বছর ইফতারসামগ্রী তৈরির প্রধান কাঁচামাল তেল, গ্যাস ও চিনির মূল্য অনেক বেশি। কিন্তু আমাদের ইফতারসামগ্রীর দাম বাড়েনি। এ কারণে বিক্রি বেড়েছে। আমরা কোনো রকমে কর্মচারী এবং দোকান টিকিয়ে রাখার চেষ্টা করছি। লাভের কথা না ভেবে প্রতিষ্ঠানের সুনাম অক্ষুণ্ন রাখার চেষ্টা করছি।’

জেলা শহরে নাজ, শতরূপা, থ্রি স্টার, মামা ভাগনা, মঙলা, টিপটপ, হোটেল সহিদুলসহ ছোট-বড় হোটেলে ইফতারসামগ্রী বিক্রয় হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন