বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

হুমায়ূনভক্ত মুহাম্মদ লিংকন বলেন, ‘ভালোবাসা ও শ্রদ্ধায় আজীবন লেখককে স্মরণ করে যাব।’ জন্মদিন উপলক্ষে জয়দেবপুর রেলজংশন থেকে সকালে যাত্রা শুরু করেন নুহাশপল্লীর উদ্দেশে। পথে মানুষের মধ্যে ক্যানসার–সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করেছেন। এ ছাড়া রাজবাড়ি মাঠে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের নিয়ে কেক কাটা হয়েছে।

নুহাশপল্লীর ব্যবস্থাপক সাইফুল ইসলাম বলেন, দোয়া মাহফিলসহ বরাবরের মতো নানা আনুষ্ঠানিকতায় লেখককে স্মরণ করা হয়।

লেখকের স্বপ্ন ধীরে ধীরে পূরণ হচ্ছে জানিয়ে লেখকের স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন বলেন, নতুন প্রজন্ম মহামারিকালে হুমায়ূন আহমেদের লেখা পাঠ করছে। তাঁর লেখার ভেতরকার রস, বোধ ও মানবিকতার সঙ্গে পরিচিত হচ্ছে, এটা বিস্ময়কর।

বরেণ্য কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ ১৯৪৮ সালের ১৩ নভেম্বর নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় জন্মগ্রহণ করেন। ২০১২ সালের ১৯ জুলাই ক্যানসারে তিনি মৃত্যুবরণ করেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন