default-image

নেত্রকোনা শহরের একটি বাসা থেকে অপহরণের দুদিন পর পূজা দেবনাথ নামের সাড়ে তিন বছরের এক শিশুকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ মঙ্গলবার দুপুরে সিলেট বিজিবি ক্যাম্পের বিপরীতে আখালিয়া পূর্বসাজি এলাকা থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। পুলিশ অপহরণের অভিযোগে এক নারীকে গ্রেপ্তার করেছে।

গ্রেপ্তার নারীর নাম রিনা আক্তার (৩২)। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তাঁর স্বীকারোক্তির বরাত দিয়ে নেত্রকোনা মডেল থানার এসআই আবদুস সালাম জানিয়েছেন, পাচারের উদ্দেশ্যে গত রোববার সন্ধ্যায় শিশুটিকে অপহরণ করেন রিনা। তিনি নেত্রকোনা শহরের নাগড়া এলাকার খায়রুল ইসলামের (২৫) স্ত্রী।

উদ্ধার হওয়া শিশু পূজা দেবনাথ নেত্রকোনার কলমাকান্দা উপজেলার ঘনিচা গ্রামের রিপন দেবনাথের মেয়ে। রিপন বর্তমানে নাগড়া এলাকায় একটি ভাড়া বাসায় থাকেন এবং শহরের বড়বাজার এলাকার সুতার দোকানদার।

এলাকার কয়েকজন বাসিন্দা ও শিশুটির পরিবারের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, পরিবারের আর্থিক অবস্থা ভালো না হওয়ায় আশপাশের বিভিন্ন বাসাবাড়িতে কাজ করতেন রিনা। কিছুদিন ধরে পূজার মা ইতি দেবনাথের সঙ্গে সখ্য গড়ে ওঠায় বাসায় আসা–যাওয়া করতেন তিনি। রোববার সন্ধ্যায় বিদ্যুৎ চলে গেলে তিন মেয়ে ঝুমঝুমি (৬), পূজা (৩) ও দেড় বছরের বৈশাখীকে রেখে স্থানীয় দোকান থেকে মোমবাতি ও কয়েল আনতে যান ইতি। তখন রিনা ঘরে ঢুকে পূজাকে চকলেট খাওয়ানোর কথা বলে ডেকে নিয়ে যান। ইতি ঘরে এসে পূজাকে না পেয়ে খোঁজাখুঁজি শুরু করলে একপর্যায়ে বড় মেয়ে ঝুমঝুমি তার মাকে বিষয়টি জানায়।

বিজ্ঞাপন

ওই রাতে নেত্রকোনা মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন পূজার বাবা রিপন দেবনাথ। শিশুটিকে উদ্ধারের দায়িত্ব পান মডেল থানা-পুলিশের পরিদর্শক সুহেল রানা, উপপরিদর্শক (এসআই) আবদুস সালাম ও পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের (ডিবি) এসআই সোহাগ। আজ মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় তাঁরা পূজাকে উদ্ধার করেন।

এসআই আবদুস সালাম বলেন, পূজাকে অপহরণের পর রিনা আক্তার কখনো সুনামগঞ্জের ধরমপাশা, জামালগঞ্জ, আবার কখনো সিলেটের ছাতকে যান। সিলেট কোতোয়ালি থানার আখালিয়া এলাকার বাসিন্দা আবদুর রবের বাড়ি থেকে শিশুসহ রিনাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

জেলা পুলিশ সুপার আকবর আলী মুন্সী বলেন, শিশুটিকে সুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। রাতের মধ্যে শিশুটিকে তার মা–বাবার কাছে হস্তান্তর করা হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন