বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

প্রত্যক্ষদর্শী, রেল কর্তৃপক্ষ ও থানা-পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আজ সকালে পূর্বধলার জারিয়া স্টেশন থেকে ময়মনসিংহগামী ২৭২ নম্বর ডাউন ট্রেনটি ছেড়ে যায়। কিছুদূর গিয়ে পূর্বধলা সদর ইউনিয়নের তারাকান্দা মজিদ মাস্টারের বাড়ির সামনে রেললাইনে হাঁটাহাঁটির সময় রোকেয়া আক্তার ওই ট্রেনে কাটা পড়েন। এতে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান।

নিহতরা হলেন পূর্বধলা উপজেলার পাজুনিয়া গ্রামের সাহেব আলীর স্ত্রী রোকেয়া আক্তার (৫৫) এবং মোহনগঞ্জ উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামের আবদুর মান্নানের ছেলে রুবেল মিয়া (২৮)।

পূর্বধলা রেলস্টেশনের মাস্টার আবদুল মোমেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ওই নারী কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন ছিলেন বলে তাঁর স্বজনেরা জানিয়েছেন। তিনি কানেও কম শুনতেন।

পূর্বধলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শিবিরুল ইসলাম বলেন, গৌরীপুর রেলওয়ে পুলিশ নিহত নারীর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের মর্গে পাঠিয়েছে। এ ঘটনায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

অন্যদিকে গতকাল সন্ধ্যায় নেত্রকোনা শহরের কোর্ট স্টেশনে চলন্ত ট্রেনে উঠতে গিয়ে কাটা পড়েন মো. রুবেল মিয়া। প্রত্যক্ষদর্শী ও রেল কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গেছে, গতকাল বিকেল পৌনে পাঁচটায় মোহনগঞ্জ স্টেশন থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী মহুয়া লোকাল ট্রেনটি সন্ধ্যা ছয়টায় নেত্রকোনা কোর্ট স্টেশনে থামে। নির্দিষ্ট বিরতির পর ট্রেনটি স্টেশন ছাড়লে রুবেল মিয়া চলন্ত ট্রেনে উঠতে যান। এ সময় তিনি পা পিছলে প্ল্যাটফর্ম থেকে ট্রেনের নিচে পড়ে যান। এতে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান।

নেত্রকোনা রেলস্টেশনের মাস্টার মো. নাজমুল হক খান ঘটনাটি নিশ্চিত করে জানান, খবর পেয়ে মোহনগঞ্জ রেলওয়ে পুলিশ নিহত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করে হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন