বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

তবে ওই চিঠিতে দেখা যায়, মোহাম্মদ জুলকার নাঈম গতকাল শুক্রবার স্বাক্ষর করেছেন। চিঠিতে বলা হয়েছে, ২৬ ডিসেম্বর নোয়াখালী সদর উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন পরিষদের সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ নির্বাচনে চর মটুয়া ইউপিতে নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী কামাল উদ্দিন প্রচারণায় মহড়াসহ মিছিল করেছেন বলে রিটার্নিং কর্মকর্তার নজরে এসেছে। এটা সুস্পষ্টভাবে নির্বাচনী আচারণবিধির লঙ্ঘন। আচারণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে কেন তাঁর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না, সেটা আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সশরীর উপস্থিত হয়ে ব্যাখ্যা দেওয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কামাল উদ্দিন প্রথম আলোকে বলেন, আজ বেলা ১টা পর্যন্ত তিনি রিটার্নিং কর্মকর্তার কোনো চিঠি পাননি। চিঠি পেলে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তাঁর কার্যালয়ে হাজির হয়ে তিনি নিজের বক্তব্য উপস্থাপন করবেন।

গত বুধবার বিকেলে কামাল উদ্দিনের পক্ষে স্থানীয় চর মটুয়া কলেজের সামনে থেকে একটি মোটর শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা প্রদক্ষিণ করে। সন্ধ্যায় শোভাযাত্রাটি মনারখিল এলাকার পীর মোছলেহ উদ্দিনের মাজার নামকস্থানে সড়কের মোড় ঘোরার সময় একটি পিকআপ ভ্যান থেকে ছিটকে পড়ে দুই স্কুলছাত্রের মৃত্যু হয়। দুই ছাত্র হলো উপজেলার রাউলদিয়া গ্রামের মো. মোহনের ছেলে মেহেরাজ উদ্দিন (১২) ও ব্রহ্মপুর গ্রামের মো. সবুজের ছেলে মো. সম্রাট (১১)। এর মধ্যে মেহেরাজ ঠেকারহাট হাজী আহম্মদ উল্যাহ উচ্চবিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির এবং সম্রাট উদয় সাধুরহাট ইকরা প্রি-ক্যাডেট একাডেমির পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র ছিল।

তবে ওই সময় কামাল উদ্দিন বলেছিলেন, সেখানে তাঁর নির্বাচনী কোনো শোভাযাত্রা ছিল না। সেটি ছিল প্রকৃতপক্ষে বিজয় দিবস উপলক্ষে শোভাযাত্রা। কিন্তু তাঁর নির্বাচনী প্রতিপক্ষ তাঁকে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে ফেলার জন্য এ ধরনের অপপ্রচার চালানো হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন