default-image

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের চরএলাহী ইউনিয়নে এক কিশোরকে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন ও তার মাকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। খেতের ধান খাওয়ায় গরুকে আঘাত করলে গতকাল শনিবার বিকেলে ওই কিশোরকে নির্যাতন করা হয় বলে অভিযোগে বলা হচ্ছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নির্যাতনের শিকার কিশোরের নাম আইয়ুব খান (১৭)। তার মায়ের নাম বিবি খতিজা (৩৭)। গতকাল দুপুরে জাহাঙ্গীর নামের এক ব্যক্তির গরু কিশোর আইয়ুব খানদের খেতের ধান খায়। তখন আইয়ুব গরুটিকে আঘাত করে। এর জের বিকেলে ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জোবায়ের হোসেনের উপস্থিতিতে জাহাঙ্গীরসহ পাঁচ থেকে ছয়জন আইয়ুব ও তার মাকে মারধর করে।

নির্যাতনের শিকার কিশোরকে পরে স্থানীয় এক ব্যক্তি উদ্ধার করে হাত বাঁধা অবস্থায় ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যানের কাছে নিয়ে গেলে প্রাথমিক চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়। পরে মা-ছেলেকে লিখিত অভিযোগ দেওয়ার জন্য থানায় পাঠানো হয়। অভিযোগ দেওয়ার পর চিকিৎসার জন্য পরে ভুক্তভোগীরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হন।

এদিকে নির্যাতনের একটি ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লেও আজ রোববার পর্যন্ত পুলিশ এ ঘটনায় জড়িত কাউকে আটক করতে পারেনি।

বিজ্ঞাপন

আইয়ুবের মামা মো. ইউছুফ জানান, গরুকে আঘাত করার খবর পেয়ে অভিযুক্ত ব্যক্তিরা আইয়ুবদের বাড়িতে গিয়ে ঘর থেকে টেনেহিঁচড়ে বাইরে বের করে। জাহাঙ্গীরের বাড়িতে নিয়ে একটি গাছের সঙ্গে হাত বেঁধে এলোপাতাড়ি পেটানো হয়। অভিযুক্ত ব্যক্তিরা আইয়ুবের মাকেও মারধর করে। এতে তাঁর পরনের কাপড় ছিঁড়ে যায়।

নির্যাতনের সময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত থাকা ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতা জোবায়ের হোসেনের মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তা বন্ধ পাওয়া যায়। অন্য অভিযুক্ত ব্যক্তিরা পলাতক।

চরএলাহী ইউপির চেয়ারম্যান আবদুর রাজ্জাক জানান, তুচ্ছ ঘটনার জেরে কিশোর ও তার মাকে নির্যাতনের ঘটনাটি অত্যন্ত অমানবিক। ঘটনা জানার পরপরই তিনি তাঁদের আইনের আশ্রয় নিতে পরামর্শ দেন।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর জাহেদুল হক বলেন, নির্যাতনের ঘটনায় একটি লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া ভিডিও দেখেছেন। অভিযুক্ত ব্যক্তিদের আটকের চেষ্টা চলছে বলেও জানান ওসি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন