default-image

নোয়াখালীর হাতিয়া উপজেলায় এক গৃহবধূকে (২০) বসতঘরের সামনে থেকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় তিনজনকে আসামি করে গতকাল মঙ্গলবার রাতে হাতিয়া থানায় মামলা করেছেন নির্যাতনের শিকার নারী।

পুলিশ জানায়, মামলার পর রাতেই অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে ফজর আলী ওরফে হেলাল নামের একজন আজ বুধবার দুপুরে নোয়াখালীর হাতিয়ায় সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নিজাম উদ্দিনের আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

নির্যাতনের শিকার নারীর অভিযোগের বরাত দিয়ে হাতিয়া থানার পুলিশ জানায়, গত ২৭ ফেব্রুয়ারি রাত আটটার দিকে প্রতিদিনের মতো খাওয়া দাওয়া শেষে গৃহবধূ স্বামীসহ বসতঘরে ঘুমিয়ে পড়েন। রাত পৌনে ১২টার দিকে ওই নারী প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে ঘরের বাইরে বের হন। এ সময় উপজেলার ফজর আলী ওরফে হেলাল তাঁর মুখ চেপে ধরে বাড়ির পাশের একটি স্থানে নিয়ে যান। সেখানে ফজর আলী, মো. মিরাজ ও মো. নেজাম মিলে তাঁকে ধর্ষণ করেন।

হাতিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের প্রথম আলোকে বলেন, তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এর মধ্যে একজন আজ জবানবন্দি দিয়েছেন। গ্রেপ্তার আসামিদের আজ দুপুরে আদালতে পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়া নির্যাতনের শিকার নারীর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য আজ নোয়াখালীর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন