default-image

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা ও ফেনীর দাগনভূঞা উপজেলার সীমান্তবর্তী খাল থেকে অজ্ঞাতনামা এক তরুণীর (১৮) পোড়া লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আজ সোমবার সকালে স্থানীয় লোকজনের তথ্যের ভিত্তিতে কোম্পানীগঞ্জ থানার পুলিশ চরপার্বতী ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের জনতাবাজারসংলগ্ন দাদনার খাল থেকে লাশটি উদ্ধার করে।

থানার পুলিশ জানায়, বেলা একটার দিকে লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালীর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, ওই তরুণীকে হত্যার পর লাশে আগুন দেওয়া হয়।

ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ওই তরুণীর ব্যবহৃত জুতা ছাড়াও আরও এক জোড়া জুতা উদ্ধার করেছে। লাশের আশপাশে ছিল একটি ধারালো ছোরা ও মুখে পরার মাস্ক।

পুলিশ ও স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আজ সকাল নয়টার দিকে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার চরপার্বতী ইউনিয়নের স্থানীয় এক ব্যক্তি গরু নিয়ে মাঠে গেলে দাদনার খালে তরুণীর পোড়া লাশ পড়ে থাকতে দেখেন। এ সময় আশপাশের লোকজন এসে লাশটি দেখে কোম্পানীগঞ্জ থানার পুলিশকে খবর দেন।

বিজ্ঞাপন

সকাল ১০টার দিকে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহত তরুণীর লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর জাহেদুল হক।

ওসি বলেন, প্রাথমিকভাবে তিনি ধারণা করছেন, রাতের শেষ দিকে ওই তরুণীকে দুর্বৃত্তরা গলায় ওড়না পেঁচিয়ে হত্যা করে শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয়। ঘটনাস্থলে ধস্তাধস্তির আলামত পাওয়া গেছে। এ ছাড়া ঘটনাস্থল থেকে দুই জোড়া জুতা (এক জোড়া তরুণীর, এক জোড়া পুরুষের), একটি অল্প দামের ছোরা, একটি মুখে পরার মাস্ক জব্দ করা হয়েছে।

জাহেদুল হক আরও জানান, আগুনে পরনে থাকা কাপড় পুড়ে শরীরের সঙ্গে মিশে গেছে। স্থানীয় কেউ নিহত তরুণীর লাশ শনাক্ত করতে পারেননি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন