default-image

নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র মোতাহের হোসেন ওরফে মানিকের বাড়িতে নৌকার সমর্থকেরা ককটেল হামলা ও ভাঙচুর চালিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজ বৃহস্পতিবার বিকেল পাঁচটার দিকে এ হামলার ঘটনা ঘটে। এ ছাড়া সন্ধ্যায় পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডে ধানের শীষের প্রচার মাইক ভাঙচুর করেছেন নৌকার সমর্থকেরা।

বিএনপির মেয়র প্রার্থী ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আজ বিকেল পাঁচটার দিকে মেয়র মোতাহের হোসেন পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডের রামপুর এলাকায় তাঁর বাড়িতে দলীয় ১০-১২ জন কর্মীকে নিয়ে বৈঠক করছিলেন। একই সময় সেখানে দু-তিনজন গণমাধ্যমের কর্মী নির্বাচন বিষয়ে তাঁর সাক্ষাৎকার নিতে যান। এ সময় ১৫-১৬টি মোটরসাইকেলযোগে নৌকার সমর্থকেরা এসে অতর্কিতে বাড়ির সামনে ককটেল হামলা চালান। তাঁরা এ সময় বসতঘরের দরজা-জানালায় আঘাত করেন এবং আগ্নেয়াস্ত্র উঁচিয়ে ভয়ভীতি প্রদর্শন করেন। এ ঘটনায় পুরো এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে সোনাইমুড়ী থানার পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

১৫-১৬টি মোটরসাইকেলযোগে নৌকার সমর্থকেরা এসে অতর্কিতে আমার বাড়ির সামনে ককটেল হামলা চালান। তাঁরা এ সময় বসতঘরের দরজা-জানালায় আঘাত করেন এবং আগ্নেয়াস্ত্র উঁচিয়ে ভয়ভীতি প্রদর্শন করেন। এসব ঘটনায় নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ মারাত্মকভাবে হুমকির মুখে পড়েছে।
মোতাহের হোসেন, সোনাইমুড়ী পৌরসভার মেয়র ও বিএনপির মেয়র প্রার্থী

মেয়র মোতায়ের হোসেন মানিক প্রথম আলোকে বলেন, তিনি ঘটনাটি তাৎক্ষণিক জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, রিটার্নিং কর্মকর্তা ও থানা-পুলিশকে অবহিত করেছেন।

মোতাহের হোসেন অভিযোগ করে বলেন, আজ সন্ধ্যায় পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডে তাঁর একটি প্রচার মাইকও ভাঙচুর করেছেন নৌকার সমর্থকেরা। তাঁরা এ সময় প্রচারযন্ত্র ও ব্যাটারি পানিতে ফেলে দেন। এসব ঘটনায় নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ মারাত্মকভাবে হুমকির মুখে পড়েছে বলেও অভিযোগ এই মেয়র প্রার্থীর।

আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী নুরুল হক বিএনপির মেয়র প্রার্থীর বাড়িতে ককটেল হামলার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।
বিজ্ঞাপন

এদিকে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী নুরুল হক বিএনপির মেয়র প্রার্থীর বাড়িতে ককটেল হামলার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। আজ রাত পৌনে নয়টায় প্রথম আলোকে তিনি বলেন, নৌকার প্রচারণায় গেলে বিএনপির প্রার্থীর সমর্থকেরা বাড়ি থেকে তাঁদের ওপর হামলা চালান। এ হামলায় নৌকার প্রচারে থাকা এক কর্মী আহত হয়েছেন। তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সোনাইমুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. গিয়াস উদ্দিন প্রথম আলোকে বলেন, মেয়র মোতাহের হোসেনের বাড়িতে হামলার অভিযোগ পেয়ে তাৎক্ষণিক পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে কাউকে পায়নি। তবে নৌকার প্রার্থীর লোকজন অভিযোগ করেছেন, তাঁরা ওই এলাকায় প্রচারে গেলে মেয়রের বাড়ি থেকে তাঁদের ওপর হামলা চালানো হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন