বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

যে দুই আসামি স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন তাঁরা হলেন চৌমুহনী পৌরসভার টিঅ্যান্ডটি কলোনির মো. আরিফ (২১) ও গণিপুরের আবদুর রহিম (৪০)। আজ শুক্রবার সকালে জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয় থেকে এসব তথ্য নিশ্চিত করা হয়।

ওই দুজনকে গ্রেপ্তারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ১৫ অক্টোবর মন্দির, পূজামণ্ডপ, দোকান ও বাড়িঘরে হামলা-ভাঙচুর এবং একজন ইসকন ভক্তকে মারপিট করে পুকুরে ফেলে দেওয়ার কথা স্বীকার করেন। পরে তাঁরা এ বিষয়ে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে রাজি হন।

কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন রাখার খবরের জেরে ১৩-১৫ অক্টোবর নোয়াখালীর হাতিয়া ও বেগমগঞ্জসহ বিভিন্ন উপজেলায় মন্দির, পূজামণ্ডপ, দোকানপাট ও বাড়িঘরে হামলা-ভাঙচুর এবং লুটপাটের ঘটনা ঘটে। হামলায় নিহত হন দুই ইসকন ভক্ত। এসব ঘটনায় এ পর্যন্ত বিভিন্ন থানায় মোট ২৯টি মামলা হয়েছে। এসব মামলায় এখন পর্যন্ত ২১২ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন আটজন আসামি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন