বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সদর উপজেলার ৯টি ইউপির মধ্যে ৫টিতেই নৌকার প্রার্থীরা হেরেছেন। ওই পাঁচ ইউপির চারটিতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ও একটিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী নির্বাচিত হয়েছেন। এ ছাড়া আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের নির্বাচনী এলাকা কবিরহাট উপজেলার সাতটি ইউপির পাঁচটিতে নৌকার প্রার্থীরা জিতেছেন। বাকি দুই ইউপিতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন।

সদর উপজেলার বিজয়ী প্রার্থীরা হলেন ১ নম্বর চর মটুয়া ইউপিতে মো. কামাল উদ্দিন (নৌকা), ২ নম্বর দাদপুরে মিজানুর রহমান (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী-আনারস), ৪ নম্বর কাদির হানিফে রহিম চৌধুরী (নৌকা), ৮ নম্বর এওজবালিয়ায় মো. বেলাল হোসেন (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী, আনারস), ৯ নম্বর কালাদরাপে শাহদাত উল্যাহ (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী, আনারস), ১০ নম্বর অশ্বদিয়ায় গোলাম হোসেন ওরফে বাবলু (নৌকা), ১১ নম্বর নেয়াজপুরে আমির হোসেন বাহাদুর (নৌকা), ১৯ নম্বর পূর্ব চর মটুয়ায় ফয়সাল বারী চৌধুরী (স্বতন্ত্র) ও ২০ নম্বর আন্ডারচরে মো. জসিম উদ্দিন (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী, ঘোড়া)।

এ ছাড়া কবিরহাট উপজেলার বিজয়ীরা হলেন নরোত্তমপুর ইউপিতে এ কে এম সিরাজ উল্যাহ (নৌকা), সুন্দলপুরে মো. ইলিয়াছ (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী, আনারস), ধানসিঁড়িতে মো. কামাল খান (নৌকা), ঘোষবাগে কে এম আলাউদ্দিন (নৌকা), চাপরাশিরহাটে মহিউদ্দিন (নৌকা), ধানশালিকে সাহাব উদ্দিন (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী, আনারস) ও বাটইয়াতে জসিম উদ্দিন (নৌকা)।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ রবিউল আলম প্রথম আলোকে বলেন, গতকাল ২ উপজেলার ১৬ ইউপিতে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ভোট গণনা শেষে ঘোষিত ফলাফল ১৬ ইউপির ৯টিতে নৌকার প্রার্থী ও ৭টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা জিতেছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন