ঢাকা-১০ আসনের উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী শফিউল ইসলাম আঙুলের ছাপ ও জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর না মেলায় ভোট দিতে পারেননি। তিনি রাজধানীর উত্তরার ভোটার। মাইগ্রেট করে এ আসনের ভোটার হয়েছেন।

নৌকার প্রার্থী শফিউল ইসলাম আজ শনিবার সকাল ৯টা ৫৩ মিনিটে ভোট দিতে আসেন রাজধানীর কলাবাগান লেক সার্কাস স্কুল ভোটকেন্দ্রে। এ আসনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট গ্রহণ হচ্ছে। কিন্তু আঙুলের ছাপ না মেলায় তিনি ভোট দিতে পারেননি। তাঁর জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বরও মেলেনি। সার্ভারেও নৌকার প্রার্থীর নাম নেই।

এ ব্যাপারে প্রিসাইডিং কর্মকর্তা আহসানুল হক প্রথম আলোকে বলেন, শফিউল ইসলাম রাজধানীর উত্তরার ভোটার। তিনি মাইগ্রেট করে ঢাকা-১০ আসনের ভোটার হয়েছেন। কিন্তু কোনো সমস্যার কারণে হয়তো ঠিকমতো মাইগ্রেট হয়নি।

বেলা পৌনে ১১টা পর্যন্ত শফিউল ইসলাম ভোট দিতে পারেননি। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত তিনি কলাবাগান লেক সার্কাস স্কুল ভোটকেন্দ্রে অবস্থান করেছেন।

ঢাকা-১০ শূন্য আসনের উপনির্বাচনে ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে। সকাল নয়টায় ভোট নেওয়া শুরু হয়। গাইবান্ধা-৩ এবং বাগেরহাট-৪ আসনে উপনির্বাচন হচ্ছে। কোনো বিরতি ছাড়াই সকাল নয়টা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত ভোট চলবে। নির্বাচন কমিশন ঢাকা-১০ আসনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) ব্যবহার করবে। অপর দুই আসনে ব্যালট পেপার ব্যবহার করা হবে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে এই নির্বাচন নিয়ে সমালোচনা চলে। তা সত্ত্বেও নির্বাচন কমিশন তা স্থগিত করেনি।

গত ২৯ ডিসেম্বর ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য ফজলে নূর তাপস পদত্যাগ করলে ঢাকা-১০ নির্বাচনী আসন শূন্য হয়।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0