বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুঠিয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. জয়নুল আবেদীন প্রথম আলোকে বলেন, বিএনপির প্রার্থী গতকাল বিকেলে এ বিষয়ে অভিযোগ দেন। সংবাদমাধ্যমে খবর হওয়ায় তাঁদের বিষয়টি নজরে আসে। পরে বিকেল ৫টায় নৌকার প্রার্থীকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে এ বিষয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে। আজ সোমবার বিকেল পাঁচটার মধ্যে কারণ দর্শানোর নোটিশের সময় শেষ হবে। জবাব না পেলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নির্বাচন অফিস থেকে কারণ দর্শানোর নোটিশের বিষয়ে জানার জন্য আজ আবুল কালাম আজাদকে কল করা হলে, তিনি তা ধরেননি। তবে অনলাইনে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওর বিষয়ে গতকাল তিনি বলেছিলেন, নির্বাচনী প্রচারে তিনি এটা বলে ফেলেছেন। পরে এটা ভাইরাল হয়ে গেছে। আসলে এটা রাগে-ক্ষোভে তিনি বলেছেন। আর নেতা-কর্মীদের একটু সাহস দেওয়ার জন্যও এটা অনেক সময় বলতে হয়। আসলে এ ধরনের কোনো কাজ নির্বাচনে হবে না। তিনিই জনগণের ভোটে বিজয়ী হবেন।

গত শুক্রবার রাতে বানেশ্বরে নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে আবুল কালাম আজাদের দেওয়া বক্তৃতার ১ মিনিট ৪৯ সেকেন্ডের একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। সেখানে তিনি বলেন, ভোটকেন্দ্রে গেলে নৌকায় সিল মেরে দেখাতে হবে। নইলে ভোটের মাঠেই ঢুকতে দেওয়া হবে না। যদি তা না পারা যায়, তবে তাঁদের তালিকা করার জন্য নেতা-কর্মীদের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

আবুল কালাম আজাদ বানেশ্বর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। তাঁর এমন বক্তব্যে অন্য প্রার্থীরাও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এ নিয়ে গতকাল প্রথম আলো অনলাইনে ‘নৌকায় সিল মেরে দেখাতে হবে, নইলে ঢুকতে দেওয়া হবে না’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

পঞ্চম ধাপের তফসিল অনুসারে পুঠিয়ায় বেলপুকুর ও বানেশ্বর ইউপিতে নির্বাচন হবে ৫ জানুয়ারি। আনারস প্রতীক নিয়ে বানেশ্বরে স্বতন্ত্র প্রার্থী (বিএনপি–সমর্থিত) আবদুল রাজ্জাক ও হাতুড়ি প্রতীক নিয়ে বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি মনোনীত মামুনুর রশিদ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন