বিআইডব্লিউটিএ ও বিআইডব্লিউটিসি সূত্র জানায়, পদ্মায় স্রোত বৃদ্ধি পাওয়ায় বেশ কিছুদিন ধরে মাদারীপুরের বাংলাবাজার ও মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া নৌপথে ফেরি চলাচলে সমস্যা হচ্ছিল। এর মধ্যে গত দুই মাসে চার দফায় পদ্মা সেতুর পিয়ারে ফেরির ধাক্কা লাগে। ফলে বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌপথে ১৮ আগস্ট থেকে ফেরি চলাচল বন্ধ রয়েছে।

বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌপথে ১৪ দিন ধরে ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় মানুষ বিপাকে পড়েছে। এ অবস্থায় জরুরি সেবা নিশ্চিত করতে শরীয়তপুরের জাজিরার সাত্তার মাদবর, মঙ্গল মাঝির ঘাট এলাকায় নতুন ফেরিঘাট নির্মাণ করে বিআইডব্লিউটিএ। পরে সেখানে রো রো ফেরির নতুন একটি পন্টুন বসানো হয়।

এই নৌপথের জাজিরার নাওডোবা পদ্মা সেতুর চ্যানেল ধরে ভাটিতে ফেরিগুলো চলাচল করার কথা। এতে ফেরিগুলো পদ্মা সেতুর পিয়ার থেকে ৩০০ থেকে ৫০০ মিটার দূরত্ব বজায় রেখে চলাচল করতে পারবে। পাশাপাশি নৌপথের দূরত্ব দুই কিলোমিটার কমবে; বাঁচবে সময়।

গত শুক্রবার থেকে সাত্তার মাদবর, মঙ্গল মাঝি-শিমুলিয়া নৌপথে ফেরি চলাচল শুরুর কথা ছিল। কিন্তু নাব্যতা–সংকট থাকায় ফেরি চলাচল শুরু করা যায়নি। নতুন ঘাট হয়ে ছোট ব্যক্তিগত গাড়ি, অ্যাম্বুলেন্স, সরকারি দপ্তরের জরুরি গাড়ি পারাপার হবে। এ জন্য চলাচল করবে তিন-চারটি কে টাইপের ফেরি।

জানতে চাইলে বিআইডব্লিউটিসির বাণিজ্য বিভাগের পরিচালক আশিকুজ্জামান প্রথম আলোকে বলেন, ‘বিআইডব্লিউটিএর নৌ সংরক্ষণ ও পরিচালনা বিভাগ ও খনন বিভাগের তথ্যগুলো আমাদের হাতে এসে পৌঁছেছে। আমরা কাল (বুধবার) ওই নৌপথ পরিদর্শনে যাব। সবকিছু অনুকূলে থাকলে পরীক্ষামূলকভাবে ফেরি চালানো হবে। এরপর পুরোপুরি ফেরি চলাচলের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন