বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মানববন্ধনে বক্তব্য দেন বরগুনা প্রেসক্লাবের সভাপতি সঞ্জীব দাস, সাধারণ সম্পাদক সোহেল হাফিজ, লোক বেতারের স্টেশন ব্যবস্থাপক মনির হোসেন, জাগো নারীর নির্বাহী পরিচালক ডিউক ইবনে আমিনসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতারা।

বক্তারা বলেন, লঞ্চ কর্তৃপক্ষের কাছে যাত্রীদের কোনো তথ্য থাকে না। এ কারণে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিদের সঠিক সংখ্যা নির্ধারণ করা সম্ভব হয় না। এর ব্যবস্থা করা এখন জরুরি হয়ে পড়েছে। এ ছাড়া লঞ্চ মেরামতের পর অভিজ্ঞ প্রকৌশলীর দ্বারা ইঞ্জিন পরীক্ষা করাতে হবে। চালক ও স্টাফদের গাফিলতির কারণে ঝালকাঠি ট্র্যাজেডিতে হতাহত বেশি হয়েছে। এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও অপরাধীদের বিচারের দাবিও জানান বক্তারা।

মানববন্ধনের আয়োজকদের দাবির সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করে অংশ নেন বিডি ক্লিন, দুর্বার, সাইক্লিস্ট সোসাইটি বরগুনা, সায়েন্স সোসাইটির সদস্যরা।

গত বৃহস্পতিবার রাত তিনটার দিকে ঝালকাঠির সুগন্ধা নদীতে অভিযান-১০ লঞ্চে আগুন লাগে। ঢাকা থেকে লঞ্চটি বরগুনায় যাচ্ছিল। বরগুনা জেলা প্রশাসনের তালিকা অনুযায়ী লঞ্চ দুর্ঘটনায় এখনো ৩১ জন নিখোঁজ।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন