বিজ্ঞাপন

প্রতিমন্ত্রী বলেন, নৌযান শ্রমিকদের চলমান ধর্মঘটের বিষয়ে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) এবং নৌপরিবহন অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে নৌযান মালিক ও শ্রমিকদের সঙ্গে আলোচনা করেছে। আলোচনা চলমান আছে। আজকের মধ্যে এর সমাধান হবে।

আজ বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে বাংলাদেশে নবনিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামীর সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘নৌশ্রমিকদের মূল দাবি খোরাকি ভাতা। অবশ্যই তাঁদের ন্যায্য দাবি। এ ব্যাপারে কোনো সন্দেহ নেই। ভাতাটা ন্যায্য। এর আগেও শ্রমিকেরা ধর্মঘটে গিয়েছিলেন। আলোচনা করে সমাধান করেছি। শ্রমিকেরা অসহায়। তাঁরা শ্রম দিয়ে উপার্জন করে জীবিকা নির্বাহ করেন। মালিক-শ্রমিকদের সম্পর্ক থাকবে বন্ধুত্বপূর্ণ ও হৃদ্যতাপূর্ণ। মালিক-শ্রমিকদের সঙ্গে সমন্বয় করে এর সমাধান করব।’

ভারতীয় হাইকমিশনারের সঙ্গে সাক্ষাৎকালে প্রতিমন্ত্রী পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট দ্বিপক্ষীয় বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। আলোচনায় পায়রা বন্দর, মোংলা বন্দর ও আশুগঞ্জ বন্দর সম্পর্কিত বিষয়গুলো স্থান পায়। এ ছাড়া সোনামুড়া নৌপথ এবং ইছামতী নদী খননের বিষয়েও আলোচনা হয়।

এ সময় অন্যদের মধ্যে নৌপরিবহন সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন